টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গআবহাওয়া

আবহাওয়ার খবর: আজ থেকেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়বে বঙ্গে, এক ধাক্কায় দক্ষিণবঙ্গের পারদ নামবে অনেকটাই

বাংলা হান্ট ডেস্ক : সপ্তাহের শুরুটা পশ্চিমী ঝঞ্ঝা দিয়ে শুরু হলেও শেষটা যে তেমনটা যাবে না তা একেবারে নিশ্চিত। আস্তে আস্তে সরে যাচ্ছে পশ্চিমি ঝঞ্ঝা তাই মঙ্গলবার থেকেই উত্তুরে হাওয়া বঙ্গে প্রবেশ করেছে। বুধবার থেকে এক ধাক্কায় পারদ অনেকটাই নামবে বলে জানিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস। অর্থাত্ বুধবার থেকেই বঙ্গে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়তে চলেছে। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর আজ অর্থাত্ বুধবার থেকে এক ধাক্কায় পারদ নামবে অনেকটাই, স্বাভাবিকের থেকে দুই থেকে চার ডিগ্রি নীচে নামতে পারে তাপমাত্রা , তাই 12 ডিগ্রি সেলসিয়াসে ছোঁবে পারদ।এমনকি আগামী আটচল্লিশ ঘণ্টা একই আবহাওয়া বজায় থাকবে। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের ক্ষেত্রেও তাই। উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় তাপমাত্রার পারদ অনেকটাই নামবে, 9-10 ডিগ্রি সে ক্রিকেট হয়ে যেতে পারে বলেই হাওয়া অফিস সূত্রের খবর।

গত দুই থেকে তিন সপ্তাহ ধরে যেভাবে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা রাজ্যে থাবা বসিয়েছিল তাই শহরতলি সহ রাজ্যের অন্যান্য জেলায় গরমের দাপট অব্যাহত ছিল। এমনকি টানা কয়েক দিন ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে কয়েক ডিগ্রি বেশি ছিল।এমনকি সকালের দিকে মেঘ বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোদ্দুর এসবই চলছিল প্রকৃতির খেলায়।

কিন্তু হাওয়া অফিস সূত্রে জানানো হয়েছে বুধ এবং বৃহস্পতিবার স্বাভাবিকের থেকে তাপমাত্রা অনেকটাই নামবে এবং জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়বে বঙ্গে। যদিও অনেক আগে থেকেই সঙ্গে শীত নিয়ে এ অফিসের কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়বে।যদিও নভেম্বর মাসের শুরু থেকে বুলবুল ঘূর্ণিঝড় সরে যাওয়ার পর বঙ্গের শীতের আমেজ শুরু হয়েছিল কিন্তু আবারও নতুন করে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা তৈরি হওয়ায় ঠান্ডা ঢুকতে বাধা পেয়েছিল দক্ষিণবঙ্গেই।

অর্থাত্ বুধবার থেকে যে রাজ্যে শীতকাল শুরু হচ্ছে তা এক প্রকার নিশ্চিত। জানা গিয়েছে বুধবার থেকে এক ধাক্কায় দুই থেকে চার ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা কমবে। যেহেতু পশ্চিমী ঝঞ্ঝা সরে যাচ্ছে তাই উত্তুরে হাওয়া বইবে এবং রাজ্যে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়বে। আর এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে আলিপুর হাওয়া অফিস সূত্রে জানানো হয়েছে উত্তর পশ্চিম থেকে যে শীতল হাওয়া রাজ্যে প্রবেশ করে তাতে বাধা না থাকায় এবং পশ্চিমী ঝঞ্ঝা কেটে যাওয়ায় রাজ্যে ঠান্ডা পড়বে।

Back to top button