টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

একশো দিন প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাটমানি নিয়ে সরব হওয়ার পর থেকে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় জেলায় কাটমানি বিক্ষোভ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে৷ কখনও বাঁকুড়া, কখনও বর্ধমান, কখনও আবার হুগলী ও রাজ্যের অন্যান্য জেলায় রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে৷ এবার সরকারি প্রকল্প একশো দিনের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চেয়েতের বিরুদ্ধে৷ জব কার্ডের বদলে ছোটো ডায়েরি ব্যবহার করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ তুলেছে গ্রামবাসীরা৷

সূত্রের খবর, গুড়াপের চামট গ্রামের 30 নম্বর বুথে পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ অমিত ঘোড়ুয়েই নেতৃত্বে একশো দিনের কাজ পরিচালিত হত৷ অভিযোগ প্রায় আড়াইশো জন জব কার্ড হোল্ডার থাকলেও তাঁদের পুকুর কাটা সহ অন্যান্য কাজের হিসেব নিকেশ করা হত একটি ছোটো ডায়েরিতে৷ শুধু তাই নয় গত বছরেই শ্রমিকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নেওয়ারও অভিযোগ উঠেছে সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে৷ এমনকি মাত্র সতের দিনের টাকা তুলে নিতে বাধ্য করা হয় বলেও অভিযোগ৷ নির্দেশ না মানলে তাঁদের কাজ না দেওয়ার হুমকি দেওয়া হত৷ যদিও জব কার্ড হোল্ডারদের আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অমিত ঘোড়ুই৷ অবশেষে শনিবার আর্থিক দুর্নীতির বিরুদ্ধে জব কার্ড হোল্ডাররা গুড়াপ গ্রাম পঞ্চায়েতে ডেপুটেশন জমা দেয়৷

অন্যদিকে বিজেপির অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে৷ রাস্তা না নিম্রান হওয়া, বয়স্কদের জব কার্ড দেওয়া সহ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির মন্ডল সভাপতি৷তবে এই প্রথমবার নয়, একশো দিনের প্রকল্পে গ্রামের তেমন কোনো কাজ হয় না এমনই অভিযোগ বহু গ্রামবাসীদের৷ তাই এবার সেই অভিযোগের লাগাম টানতে একশ দিনের প্রকল্পের জন্য নয়া নিয়ম চালু করা হয়েছে৷ এখন থেকে আর ফাঁকি দিয়ে কাজ না করে টাকা পাবেন না জব কার্ড হোল্ডাররা৷ এবার দিনে অন্তত আট ঘন্টা ডিউটি দিতেই হবে৷

Back to top button