টাইমলাইনবিজ্ঞান

অবশেষে এলিয়েনদের সাথে হল যোগাযোগ! ৮২ ঘন্টায় মহাকাশ থেকে এল ১৮৬৩ টি রেডিও সিগন্যাল

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এলিয়েনদের (Alien) নিয়ে মানুষের মধ্যে আগ্রহের শেষ নেই। পাশাপাশি তাদের সন্ধানে বছরের পর বছর ধরে দীর্ঘ গবেষণা জারি রেখেছেন বিজ্ঞানীরা। তবে, এবার একটি চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই নাকি এলিয়েনদের দুনিয়ার (Alien World) সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছে। পাশাপাশি, বিজ্ঞানীরা প্রতিনিয়ত মহাকাশের একটি কোণ থেকে পৃথিবীতে আসা নির্দিষ্ট কিছু সিগন্যাল পাচ্ছেন বলেও জানা গিয়েছে। যেগুলিকে রেকর্ড করা হয়েছে। মূলত, এগুলি হল নতুন ধরণের রেডিও সংকেত। যা সাধারণ ফাস্ট রেডিও বার্স্ট (Fast Radio Burst, FRB) থেকে আলাদা। এদিকে, যেখান থেকে সংকেতগুলি আসছে, সেইদিকে বিজ্ঞানীরা ৯১ ঘন্টা ধরে রেডিও টেলিস্কোপ মারফত নিরবিচ্ছিন্নভাবে পর্যবেক্ষণ চালিয়ে যান। সেখানে ৮২ ঘণ্টার ব্যবধানে ১,৮৬৩ টি সংকেত এসেছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে।

মূলত, এই সংকেতগুলি আসছে আমাদের পৃথিবী থেকে বহুদূরে থাকা একটি গ্যালাক্সি থেকে। যে জায়গা থেকে সিগন্যালগুলি আসছে তার নাম FRB 20201124A। এটি চিনের ফাইভ হান্ড্রেড মিটার অ্যাপারচার স্ফেরিক্যাল রেডিও টেলিস্কোপ (ফাস্ট) দ্বারা ধরা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, চিনের পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞানী হেং শু এই সংকেতগুলোকে নিয়ে গবেষণা করছেন। এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, সেই গ্যালাক্সিতে একটি ম্যাগনেটার বা নিউট্রন স্টার রয়েছে। যেটি এই রেডিও সংকেতগুলি পাঠাচ্ছে। ওই নক্ষত্রের একটি খুব উচ্চ চৌম্বক ক্ষেত্র আছে।

এদিকে, এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে লাস ভেগাসের নেভাদা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাস্ট্রোফিজিসিস্ট বিং ঝাং জানিয়েছেন যে, “এই রেডিও সংকেতগুলি আমাদের হুঁশ উড়িয়ে দিয়েছে। আপাতত আমেরিকা এবং চিনদেশের বিজ্ঞানীরা সেগুলিকে ভালোভাবে পর্যবেক্ষণের জন্য একসাথে কাজ করছেন। এটা আমাদের কল্পনার চেয়েও অনেক বেশি রহস্যময়।এখান থেকে বিভিন্ন তরঙ্গদৈর্ঘ্যের রেডিও সংকেত পাওয়া যাচ্ছে। যেগুলোকে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাদের বোঝার চেষ্টা করা হচ্ছে। অন্য কোনো পৃথিবী থেকে আমাদের কাছে কোনো বার্তা আসছে না কি তাও দেখা হচ্ছে। কিন্তু, সেগুলিকে বোঝা এতটাও সহজ নয়। মনে হচ্ছে, FRB 20201124A-এর গ্যালাক্সি আমাদের নিজস্ব গ্যালাক্সির মতো।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ফাস্ট রেডিও বার্স্ট (FRB) প্রায় ১৫ বছর আগে আবিষ্কৃত হয়েছিল। তারপর থেকে, এই সংকেতগুলি ক্রমাগত বিজ্ঞানীদের উত্তেজিত করছে। মূলত, সেগুলিকে বোঝা কঠিন হয়ে পড়ছে। এই রেডিও বিস্ফোরণগুলি এত শক্তি প্রকাশ করে যা একসঙ্গে ৫০ কোটি সূর্যের সমান। কিন্তু অধিকাংশ FRB শুধুমাত্র একবার বিস্ফারিত হয়। যদিও, কিছু এমনও পাওয়া গেছে, যা সময়ে সময়ে রেডিও সংকেত পাঠাতে থাকে। ২০২০ সালে প্রথমবারের মতো, আমাদের আকাশগঙ্গার ভিতরে একটি ফাস্ট রেডিও বার্স্ট পাওয়া যায়।

এমতাবস্থায়, বিজ্ঞানীরা ক্রমাগত FRB 20201124A পর্যবেক্ষণ করেছেন। জানা গিয়েছে, বারংবার সংকেত আসছে মহাকাশ থেকে। পাশাপাশি, আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে, সোর্স সিগন্যাল পাঠানোর পাশাপাশি এটি পোলারাইজেশনও করছে। অর্থাৎ এটি ত্রিমাত্রিকভাবে মহাকাশে আলোর রশ্মি পাঠাচ্ছে। এখন বিজ্ঞানীরা এই রশ্মিগুলি নিয়ে গবেষণা করছেন। ইতিমধ্যেই নেচার অ্যান্ড নেচার কমিউনিকেশনে এই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে।

গত কয়েক বছর ধরে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চিনের বিজ্ঞানীরা এমন অনেক সংকেত পেয়েছেন। পাশাপাশি, ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (এমআইটি) বিজ্ঞানীরাও তিন সেকেন্ডের জন্য সক্রিয় সংকেত রেকর্ড করেছেন। এই প্রসঙ্গে এমআইটি-র বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত করেছেন যে, এই সংকেতটি প্রতি ০.২ সেকেন্ড অন্তর তিন সেকেন্ড ধরে আসছিল। এই ব্যবধানে কোনো পার্থক্য ছিল না, বরং সময়মতো সিগন্যাল পাওয়া যাচ্ছিল। এই রেডিও তরঙ্গগুলি কানাডিয়ান হাইড্রোজেন ইনটেনসিটি ম্যাপিং এক্সপেরিমেন্ট (CHIME) দ্বারা রেকর্ড করা হয়।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি, CHIME হল একটি শক্তিশালী রেডিও টেলিস্কোপ। যা কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়াতে অবস্থিত। এটি এপর্যন্ত কয়েকশ FRB-কে শনাক্ত করেছে। এই রেডিও বার্স্টের নাম দেওয়া হয়েছে FRB20191221A। এটি রেকর্ড করা দীর্ঘতম রেডিও সংকেত। যদিও এখনও পর্যন্ত, বিজ্ঞানীরা এফআরবি বা ফাস্ট রেডিও বার্স্ট কীভাবে উদ্ভূত হয়েছে তা বুঝতে সক্ষম হননি। তবে, এটা বিশ্বাস করা হয় যে তাদের জন্ম রেডিও পালসার বা ম্যাগনেটার থেকে। যখন দু’টি নিউট্রন নক্ষত্রের সংঘর্ষে একটি নতুন তারা তৈরি হয় তখন একটি ম্যাগনেটার তৈরি হয়।

Related Articles