টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

মমতার মতুয়া ভোট ব্যাঙ্কে বড় ভাঙন! শান্তনু ঠাকুরের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দিলেন কয়েকশ নেতা-কর্মী

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ রাজ্যে ভোট পর্ব শুরু হলেও তৃণমূলের ভাঙনের ধারা থামছে না। যেই মতুয়াদের নিজেদের ভোট ব্যাঙ্ক বলে দাবি করেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেখানে বড়সড় ভাঙন দেখা দিল। ভোটের আগেই বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের হাত ধরে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন তৃণমূলের কয়েকশ নেতা-কর্মী। দলে সম্মান না পাওয়ার অভিযোগ তুলে এবং দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তাঁরা ঘাসফুল ছেড়ে পদ্মফুলে যোগ দেন।

BJP vandalized tmc camp office!

গাইঘাটা জলেশ্বর ১ নম্বর পঞ্চায়েতের প্রভাবশালী নেতা সহ ২ শতাধিক কর্মী বুধবার রাতে বিজেপিতে যোগ দেন। বনগাঁর ঠাকুরনগরের ঠাকুরবাড়িতে এই যোগদানপর্ব চলে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা নেতা-কর্মীদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপির সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। নির্বাচনের আগে এই ভাঙন তৃণমূলে অনেক প্রভাব ফেলবে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

আরেকদিকে, এই ঘটনার কথা সম্পূর্ণ ভাবে অওিকার করেছেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূলের কো অর্ডিনেটর গোপাল শেঠ। তিনি জানিয়েছেন, বিজেপিতে যারা যোগদান করেছে, তাঁরা তৃণমূলের কেউ না। তৃণমূলের সঙ্গে অতীতে কোনও সম্পর্ক ছিল না তাঁদের। ওদের কোনও রাজনৈতিক পরিচয় নেই। আর শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে ২০০ জন কেন, দু’জন লোকও নেই।

বিজেপির সাংসদ শান্তনু ঠাকুর বলেন, বাংলার মানুষ এখন এই অত্যাচারী তৃণমূলের থেকে পরিত্রাণ চাইছে। সবাই চাইছে এবার বাংলায় পরিবর্তন হোক। সবাই সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বিকাশ গাইন জানান, আমরা তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই দলের হয়ে কাজ করে আসছি। কিন্তু দলে লাগাতার দুর্নীতি বেড়েই চলেছে। এমনকি আমরা দুর্নীতির প্রতিবাদ করতে গেলে আমাদের উপর অত্যাচার করা হয়েছে। তাই আমরা দল ছাড়লাম।

Back to top button