টাইমলাইনভিডিও

প্রাণ দিতে যাচ্ছিল যুবক, নিজের জীবন বাজি রেখে উদ্ধার করলেন রেলকর্মী! হাড়হিম করা ভিডিও ভাইরাল

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সোশ্যাল মিডিয়া হলো এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যার মাধ্যমে আমাদের সামনে বিভিন্ন সময়ে নানান বৈচিত্র্যময় ভিডিও উঠে আসে। এক কথায় বলতে গেলে, এই মাধ্যমটি না থাকলে হয়তো আমরা আমাদের চারপাশে ঘটে চলা ঘটনাগুলি সম্পর্কে অবগত হতেই পারতাম না। হাসির দৃশ্য উঠে আসার পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে একাধিক হিংস্র ঘটনা ধরা পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আবার অনেক সময় একাধিক স্পর্শকাতর ভিডিওর মাধ্যমে সামাজিক বার্তা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে চলেছে, যা দেখে আবেগঘন হয়ে পড়েছে সকলে। ভিডিওর প্রতিটি অঙ্গ জুড়ে মনুষ্যত্বের সুন্দর বার্তা যেন তুলে ধরা হয়েছে।

Arnab sarkar নামক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয় ভিডিওটি। ভিডিওটিতে একটি রেল প্ল্যাটফর্মের দৃশ্য চোখে পড়ে। প্ল্যাটফর্মটির মধ্যে সকলেই যে যার নিজের মতো হাঁটাচলা করতে থাকে। তবে এরপরে এমন একটি দৃশ্য ঘটে যায়, যাতে তাকে লেগেছে সকলের। ভিডিওর পরবর্তী অংশে দেখা যায়, রেল প্ল্যাটফর্মটির উপর দিয়ে হেঁটে চলেছে এক যুবক এবং আচমকাই তার চোখ যায় রেল লাইনের দিকে।

প্রসঙ্গত, রেল লাইনের মাঝে এক ব্যক্তি বসে থাকে এবং অপর প্রান্ত থেকে দ্রুতগতিতে আসতে থাকে একটি ট্রেন। সেই দৃশ্যটি দেখে এক মুহূর্ত চিন্তা না করেই সেই ব্যক্তিটিকে বাঁচাতে তৎপর হয়ে ওঠে সতীশ কুমার নামে যুবকটি এবং একপ্রকার দৌড়ে গিয়ে চলন্ত ট্রেনের সামনে থেকেই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে সে। নিজের জীবনকে বাজি রেখে যেভাবে ওই ব্যক্তিটিকে রক্ষা করার মাধ্যমে মনুষ্যত্বের প্রমান দেন ঐ যুবকটি, তাতেই মুগ্ধ হয়ে পড়েছে সকল সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা।

ভিডিওটি পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গেই তা ভাইরাল হয়ে ওঠে এবং সকলেই কমেন্ট বক্সে নিজেদের ভালোবাসা উজাড় করে দেয়। এক্ষেত্রে পোস্টদাতা ভিডিওটি শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গে ক্যাপশন লেখেন, “ছেলেটির নাম সতীশ কুমার, রেলে পয়েন্টসম্যান, ঘটনাটি আজকের। আমার সাথে কর্মসূত্রে দীর্ঘদিন ধরে পরিচিত, দাদা বলে ডাকে আমাকে।  ব্যক্তিগত জীবনে নানাভাবে বিপর্যস্ত, ভাগ্যদেবীর একের পর এক নিষ্ঠুর আঘাতে জর্জরিত ছেলেটা আজ এমন একটা অসমসাহসিক কাজ করল নিজের জীবন বিপন্ন করে, আমার শ্রদ্ধায় মাতা নত হয়ে গেল। যে মানুষটিকে ও বাঁচিয়েছে, তার পুনর্জন্ম তো হলোই, আর একটা জিনিসও বাঁচার রসদ পেল, সেটা মনুষ্যত্ব। পোস্ট করার জন্য কোনও কৃতিত্বের দাবিদার আমি নই,আমি চাই ও যেন সবার ভালোবাসা আর আশীর্বাদ পায়, আরো ভালো ভালো কাজ যেন মানুষের জন্য ও করতে পারে।”

Related Articles

Back to top button