fbpx
টাইমলাইনভারতরাজনীতি

শরণার্থীদের তালিকা পাঠালো যোগীর রাজ্যে  সিএএ আইন চালু

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে শরণার্থীদের একটি তালিকা পাঠাল যোগী আদিত্য নাথের সরকার আর সেই তালিকায় অধিকাংশই হিন্দু। গোটা ভারতবর্ষে জখন সিএএ, এনপিআর ,সিএবি নিয়ে উত্তাল অবস্থা ঠিক সেই পরিস্থিতিতে এই তালিকা তৈরি করে  পাঠান আদিত্যনাথ।

সিএএ, এনপিআর ,সিএবি নিয়ে এই মুহূর্তে দেশের অবস্থা বেশ জটিল । কারণ দেশের অধিকাংশ মানুষ এই নয়া আইন মেনে নিতে রাজি নন। তার মধ্যে অধিকাংশ হিন্দুই বেশি। ভারতের প্রথম রাজ্য হিসেবে উত্তরপ্রদেশেই প্রথম এই নিয়ম চালু হয়। তারপর এই তালিকায় মিলেছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান থেকে আসা বহু শরণার্থীর নাম কিন্তু সেই তুলনায় বেশি নাম আছে হিন্দুদেরই ।

 

 

 

 

 

এই নিয়ে ভারতবর্ষের রাজনৈতিক অবস্থা বেশ বিপদের মুখে পড়েছেন । দেশের একাধিক হিন্দুরাও বিদ্রোহের আগুনে জ্বলে ওঠেন । তারা প্রতিবাদেও সোচ্চার হন। সব মিলিয়ে হিন্দুদের এই আচরন আর যোগীর কড়া পদক্ষেপ বেশ চিন্তায় ফেলেছে ভারতের অন্যান্য রাজ্যের নাগরিকদের। কিছুদিন আগেও এই নিয়ে বেশ অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় উত্তরপ্রদেশে। পাশাপাশি এই নিয়ে  আরও একবার চিন্তার ভাঁজ পরেছে উত্তপ্রদেশের মানুষের কপালে। এই তালিকা ঘেঁটে প্রায় ৪০ হাজার অমুসলিমদের নাম পাওয়া গেছে। যারা কিছু কারনে বা বাধ্য হয়ে এখানে থাকা শুরু করেছেন ।

এখন তাদের সরানো সম্ভব নয় ,সেই নিয়ে তাদের মধ্যেও তইরি হয়েছে চাঁপা ক্ষোভ । রাজ্যের ১৯ টি জেলার রিপোর্ট তৈরি করে নাম দেওয়া হয়েছে, সেই নাম অনুযায়ী বিষয়টি দাঁড়রিয়েছে “উত্তরপ্রদেশ মে আয়ে পাকিস্তান, আফগানিস্তান আভেম বাংলাদেশ কে শরণার্থীয়ো কি আপবিতি কাহানি।’ এই রিপোর্টে শরণার্থীদের ব্যক্তিজীবনও তুলে ধরা রয়েছে”। সব মিলিয়ে হাওয়া গরম আর শেষ পরিস্থিতি কি হতে চলেছে সেই নিয়ে উদ্বেগের পাশাপাশি অশনি সংকেত দেখছে উত্তরপ্রদেশের সাধারণ নাগরিকরা ।তার সাথে চিন্তায় আছে ভারতবর্ষের অন্য রাজ্যের মানুষরাও ।

Close
Close