টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

ঐক্যের মধ্যে অনৈক্য! ব্রিগেড মঞ্চেই দেখা গেল অধীর চৌধুরী ও আব্বাস সিদ্দীকির সম্পর্কে অবনতি

জোটে যে জট লাগতে পারে তার আশঙ্কা আগে থেকেই ছিল। তৃণমূল ও বিজেপি বিরোধী সবথেকে বড়ো সভার আয়োজন হয়েছিল ব্রিগেডে। লোকসংখাও ছিল বেশ দেখার মতো। কিন্তু ব্রিগেড নিয়ে উৎসাহে থাকা লোকজন এখন যে ধাক্কা পেয়েছে তা ভালোরকম হতাশ করেছে জোট সমর্থকদের।

আসলে ব্রিগেডের মঞ্চে বক্তব্য রাখছিলেন অধীর চৌধুরী। ভাষণ দিতে গিয়ে অধীর চৌধুরী বলেন, এত বড়ো জনসভায় নিজের বক্তব্য রাখতে পেয়ে তিনি খুবই খুশি। এসব কিছু বলার মধ্যে ব্রিগেডের জনসভায় এন্ট্রি নেন ISF এর নেতা আব্বাস সিদ্দিকী। আর এরপরেই ঘটে গন্ডগোল।

মহম্মদ সেলিম প্রস্তাব দেন যে আব্বাস সিদ্দিকী কিছু বলে নিক এরপর অধীর চৌধুরী আবার নিজের বক্তব্য জারি রাখবেন। এতে রীতিমতো অসম্মানিত বোধ করেন অধীর চৌধুরী। অধীর চৌধুরী বলেন যে তিনি আর বলবেন না। যদিও বিমান বসু পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণ করেন। বিমান বসুর অনুরোধে অধীর চৌধুরী নিজের বক্তব্য সম্পূর্ণ করেন।

গন্ডগোল এখানেই থামেনি, আব্বাস সিদ্দীকি নিজের বক্তব্য শুরু করতে গিয়ে মহম্মদ সেলিম ও বিমান বসুর নাম নিলেও অধীর চৌধুরীর নাম নেননি। শুধু নয়, আব্বাস সিদ্দিকী বলেন আমরা ভিক্ষা চাইতে আসিনি অংশীদারী নিতে এসেছি। সব মিলিয়ে বিজেপি ও তৃণমূল বিরোধী জোটে যে দ্বন্দ বেঁধেছে তা স্পষ্ট।

Back to top button