টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

আমফানের পরে আর ঘরে নয় জেলায় জেলায় বেরিয়ে পড়ছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ আমফান (Amphan) বিপর্যয়ের পর বাড়িতে আর থাকতে চান না দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। জেলায় জেলায় পরিস্থিতি পর্যালোচনায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। নিজেই জানালেন, রাস্তা পরিষ্কার হলে আগামিকাল থেকেই শুরু করে দেবেন জেলা সফর।

আমফানে বিপর্যস্ত দক্ষিণবঙ্গের বিশাল অংশ। বিশেষ করে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা। এমন ধ্বংসলীলার পর বাড়িতে বসে থাকলে রাজ্যে বিজেপির ‘রাজনৈতিক কেরিয়ারে’ নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। সঙ্কটে বিজেপি নেতাদের দেখা না গেলে একুশের বিধানসভা ভোটে বিরূপ ফল হওয়ার সমূহ আশঙ্কা। বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গ থেকে লোকসভা ভোটে ১৮টি আসন পেয়েছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, কোথায় বিজেপির সাংসদরা?

আমফান পরিস্থিতির পর নিন্দুকদের সুযোগ দিতে চান না দিলীপ ঘোষ। সে কারণে বিপর্যস্ত এলাকায় যাওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। এদিন তিনি বলেন,”রাস্তা খুললেই  বেরিয়ে পড়ব। কাল হলে কাল যাব। একদিন যাব বাসন্তী, গোসাবা, আর একদিন নামখানা, মেদিনীপুরের দিকে কাঁথি তমলুকেও যাব। এতদিন লকডাউনে বাড়িতেই ছিলাম। এখন সাধারণ মানুষ ডবল ধাক্কা খেয়েছেন। রিলিফ মেটারিয়াল কীভাবে পৌঁছবে, সেটা দেখতে হবে। এখন পাশে দাঁড়ালে মানুষ সাহস পাবেন। হিম্মত পাবেন।”

রাজ্য সরকারকে সবরকম সহযোগিতার বার্তাও দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়,”ঘূর্ণিঝড়ের এত ব্যাপক অভিঘাত! যতটা সম্ভব সাধারণ মানুষকে আগে সতর্ক করার চেষ্টা করেছে আমাদের কর্মীরা। সরকারকে সহযোগিতা করতেও রাজি। কত মানুষের ঘরবাড়ি ভেঙে গিয়েছে। খোঁজখবর নিচ্ছি। খাবার ও জলের ব্যবস্থা করার চিন্তাভাবনা চলছে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকেও রিপোর্ট পাঠাতে হবে।”

প্রসঙ্গত, এদিনই ফোনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলেন অমিত শাহ। কুশল বিনিময়ের পর রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয় দুজনের। সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। অমিত শাহ টুইটারে লেখেন, ”আমফান পরিস্থিতির উপর আমরা নজর রেখে চলেছি। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে কথা বলে সম্ভাব্য সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি।”

Related Articles

Back to top button