টাইমলাইনভারত

দেশের যুবকদের জন্য “অগ্নিপথ” হল দুর্দান্ত সুযোগ! বললেন টাটা সন্সের চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের অগ্নিপথ প্রকল্পকে ঘিরে কার্যত উত্তাল হয়ে গিয়েছে গোটা দেশ। এমনকি, একাধিক রাজ্যে সহিংস বিক্ষোভের ঘটনাও ঘটেছে। মূলত, দেশের যুবসমাজের একাংশ নতুন এই প্রকল্পকে কিছুতেই মেনে নিতে পারছেনা। এমতাবস্থায়, অগ্নিপথ প্রকল্পকে নিয়ে এবার বড়সড় মন্তব্য করলেন টাটা সন্সের চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন।

মূলত, সোমবার কেন্দ্রের অগ্নিপথ প্রকল্পকে সমর্থন করে তিনি জানিয়েছেন, এর সাহায্যে দেশের যুবকদের প্রতিরক্ষা বাহিনীতে সেবা করার সুযোগের পাশাপাশি টাটা গ্রূপ সহ বিভিন্ন শিল্পের ক্ষেত্রে সুশৃঙ্খল এবং প্রশিক্ষিত কর্মী পেতে বিরাট সাহায্য করবে। এছাড়াও, তিনি মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান আনন্দ মাহিন্দ্রা, আরপিজি এন্টারপ্রাইজের চেয়ারম্যান হর্ষ গোয়েঙ্কা, বায়োকন লিমিটেডের চেয়ারপারসন কিরণ মজুমদার-শাউ এবং অ্যাপোলো হসপিটালস গ্রুপের জয়েন্ট ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঙ্গীতা রেড্ডিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কারণ, তাঁরাও এই প্রকল্পকে সমর্থন জানিয়েছেন।

এই প্রসঙ্গে চন্দ্রশেখরন একটি বিবৃতিতে অগ্নিপথ প্রকল্পের প্রশংসা করে জানিয়েছেন এতে যুবকদেরই লাভ হবে। পাশাপাশি, তিনি জানান,”টাটা গোষ্ঠীতে আমরা অগ্নিবীরদের সম্ভাবনাকে স্বীকৃতি দিই এবং এই সুযোগটিকে স্বাগত জানাই।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত সপ্তাহেই, কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন এই প্রকল্পকে ঘিরে বিহার, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা, তেলেঙ্গানা সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে প্রবল বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এমনকি, বিক্ষোভকারীদের ক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে রেলকে। শুধু তাই নয়, আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় ট্রেনেও। এদিকে, অবস্থা এতটাই বেগতিক হয়ে গিয়েছে যে, এই বিক্ষোভের জেরে সোমবার ৫০০ টিরও বেশি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

এমতাবস্থায়, বেশ কয়েকটি বিরোধী রাজনৈতিক দল এবং একাধিক সামরিক বিশেষজ্ঞরাও এই স্বল্পমেয়াদী নিয়োগ প্রকল্পের সমালোচনা করে জানিয়েছেন, এটি সশস্ত্র বাহিনীর কার্যকারিতার ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ১৪ জুন ঘোষিত অগ্নিপথ প্রকল্পে ১৭ থেকে ২১ বছর বয়সী যুবকদের মাত্র চার বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে নিয়োগের একটি নির্দেশ জারি করা হয়। যদিও, ওই সময়সীমার পর তাঁদের ২৫ শতাংশ প্রার্থীকে স্থায়ীভাবে নিযুক্ত করার প্রসঙ্গও জানানো হয়। অপরদিকে, বাকিরা গ্র্যাচুইটি এবং পেনশনের কোনোরকম সুবিধা ছাড়াই অবসর নেবেন। পাশাপাশি, সরকার ২০২২ সালে নিয়োগের জন্য বয়সের উর্ধ্বসীমা ২১ থেকে বাড়িয়ে ২৩ করেছে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে, এই নিয়োগপদ্ধতিকে ঘিরেই কার্যত উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা দেশ।

Related Articles

Back to top button