টাইমলাইনবিনোদন

ছত্রপতি শিবাজির সময়ে ইলেকট্রিক বাল্ব কোথায়! বড় কেলেঙ্কারি করে প্রোমোতেই হোঁচট খেলেন অক্ষয়

বাংলাহান্ট ডেস্ক: কথাতেই আছে, হাতি কাদায় পড়লে ব‍্যাঙেও লাথি মারে। অক্ষয় কুমারের (Akshay Kumar) অবস্থা এখন কতকটা তেমনি। তাঁর নতুন ছবি আসায় অন্ত নেই বটে, কিন্তু একটি ছবিও হিট করাতে পারছেন না তিনি। তার উপরে সঙ্গী হয়েছে ট্রোল। কখনো ছবিতে তাঁর লুক নিয়ে, কখনো আবার অযৌক্তিক বিষয়বস্তুর জন‍্য ট্রোলের নিশানায় চলে আসে অক্ষয়ের ছবি।

সম্প্রতি প্রকাশ‍্যে এসেছে অক্ষয়ের আসন্ন ছবি ‘বেদাত মরাঠে বীর দৌদলে সাত’ এর প্রথম লুক। ছত্রপতি শিবাজি মহারাজের ভূমিকায় অভিনেতাকে দেখে ইতিমধ‍্যেই নাক সিঁটকেছে নেটিজেনদের একাংশ। পৃথ্বীরাজের মতো এই ছবিটাও ফ্লপ হবে এবং সেই সঙ্গে অপমান হবে বীর শিবাজি মহারাজের, এমনি অভিযোগ তুলেছিলেন কয়েকজন।

akshay shivaji
এছাড়াও আরো একটি কারণে চর্চায় রয়েছে ছবিটির প্রথম ঝলক। কারণ একটি বড়সড় ভুল নজরে পড়েছে নেটিজেনদের। প্রথম প্রোমোতে দেখা যায়, শিবাজি রূপী অক্ষয় হেঁটে এগিয়ে আসছেন। তাঁর মাথার পেছনে সিলিং থেকে ঝুলছে একটি বিশালাকার ঝাড়লন্ঠন। এতেই বেঁধেছে গণ্ডগোল।

ছত্রপতি শিবাজি মহারাজের সময়ে ইলেকট্রিসিটি এল কোথা থেকে? একজন লিখেছেন, ছত্রপতি শিবাজি মহারাজের শাসনকাল ছিল ১৬৭৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৬৮০ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত। আর থমাস আলভা এডিসন প্রথম ইলেকট্রিক বাল্ব আবিষ্কার করেন ১৮৮০ খ্রিস্টাব্দে অর্থাৎ ২০০ বছর প‍র। তাহলে অক্ষয়েল ছবিতে শিবাজির সময়ে ঝাড়লন্ঠনে বাল্ব এল কি ভোজবাজিতে?

ছবির প্রথম ঝলকেই এত বড় একটা ভুল নির্মাতাদের নজর এড়িয়ে গেল কীকরে তাই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। কেউ কেউ বলছেন, তাড়াহুড়ো করে নমো নমো করে ছবি শেষ করলে এমন কেলেঙ্কারি আরো অনেক হবে। এটা অবশ‍্য প্রথম নয়। এর আগে ‘রাম সেতু’র পোস্টারে মশাল এবং ফ্ল‍্যাশলাইট একসঙ্গে থাকা নিয়েও ট্রোল হয়েছিল।

Related Articles