টাইমলাইনভারত

বড় সিদ্ধান্ত! নিষিদ্ধ হল WhatsApp, Telegram সহ সমস্ত বিদেশি ম্যাসেজিং অ্যাপ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গোয়েন্দা সংস্থাগুলি ন্যাশনাল কমিউনিকেশন সিকিউরিটি পলিসির নির্দেশিকা এবং কর্মকর্তাদের দ্বারা সরকারী নির্দেশনা লঙ্ঘন এবং বেশ কয়েকটি তথ্য ফাঁসের পরে যোগাযোগের বিষয়ে নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে। নতুন নির্দেশনায় সমস্ত সরকারি কর্মকর্তাদের গোপন তথ্য শেয়ার করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপ, টেলিগ্রামের মতো অ্যাপ ব্যবহার করায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

নিউজ ১৮-র একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, গোয়েন্দা সংস্থাগুলির নির্দেশে বলা হয়েছে যে হোয়াটসঅ্যাপ-টেলিগ্রামের মতো অ্যাপগুলিতে গোপনীয় তথ্য ভাগ করা বিপদ থেকে মুক্ত নয়, কারণ বেসরকারী সংস্থাগুলি তাদের সার্ভারে ডেটা সংরক্ষণ করে যা দেশের বাইরে অবস্থিত। এই তথ্যের অপব্যবহারও হতে পারে আশঙ্কা গোয়েন্দাদের। ভিডিও কনফারেন্সিং-র মাধ্যমে মিটিং করা এবং বাড়ি থেকে কাজ করা অফিসারদের এই জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সব মন্ত্রণালয়কে অবিলম্বে এই নির্দেশনা কার্যকর করতে বলা হয়েছে। বৈঠকে অ্যাপেল সিরি, অ্যামাজন অ্যালেক্সা, গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ইত্যাদির মতো কোনো স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করা উচিত নয় বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, অনেক অফিসার গুরুত্বপূর্ণ নথিগুলি তাদের ফোনে স্ক্যান করে রাখেন এবং তারপরে বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে অন্যদের সাথে শেয়ার করেন যা নিরাপদ নয়।

সব মন্ত্রণালয়ে পাঠানো নতুন নির্দেশনায় বলা হয়েছে যে, কর্মকর্তাদের মিটিং চলাকালীন কক্ষের বাইরে স্মার্টফোন ও স্মার্টওয়াচ রাখতে হবে। এছাড়া অ্যামাজন ইকো, অ্যাপেল হোমপড, গুগল হোমের মতো স্মার্ট ডিভাইসের ব্যবহারও অফিসে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। হোম নেটওয়ার্কের মাধ্যমে কোনো গুরুত্বপূর্ণ নথি পাঠানোও নিষিদ্ধ।

রিপোর্টে অনুযায়ী, নতুন নির্দেশনায় যেকোনো স্থানে ভার্চুয়াল মিটিং করতে নিষেধ করা হয়েছে। নির্দেশে বলা হয়েছে যে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের জন্য তৃতীয় পক্ষের অ্যাপের পরিবর্তে, সমস্ত কর্মকর্তা এবং মন্ত্রকদের ভারত সরকারের ভার্চুয়াল সেটআপ ব্যবহার করতে হবে, যা সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট অফ অ্যাডভান্সড কম্পিউটিং দ্বারা প্রস্তুত করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button