টাইমলাইনবিনোদনভিডিও গান

চর্চায় এখন একটাই জুটি, ‘টুরু লাভ’ শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে গানও বেঁধে ফেললেন অনীক ধর

বাংলাহান্ট ডেস্ক: গল্প, নভেলে কতই না রোম‍্যান্টিক জুটির কথা পড়ে থাকি আমরা। লায়লা মজনু, হীর রাঞ্ঝার মতো জুটি তাদের অমর প্রেমের জোরে চিরকালীন প্রেমিক প্রেমিকা রূপে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। কিন্তু হাল আমলে ট্রেন্ড সর্বস্ব সোশ‍্যাল মিডিয়ার জগতে যে জুটি আপাতত চর্চায় রয়েছে তারা হলেন শোভন চট্টোপাধ‍্যায় (sovan chatterjee) ও বান্ধবী বৈশাখী বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় (baishakhi banerjee)। নিজেদের কর্মকাণ্ডের দৌলতে এমনি লাইমলাইট পেয়েছেন যে গানও তৈরি হতে শুরু করেছে দুজনকে নিয়ে।

হ‍্যাঁ, কথাটা শুনতে অবাক লাগলেও একেবারে খাঁটি সত‍্যি। শোভন বৈশাখীকে নিয়ে গান বেঁধেছেন জনপ্রিয় গায়ক অনীক ধর (aneek dhar)। গানের কথা অনুযায়ী, ম‍্যাচিং ম‍্যাচিং পোশাকের জোরে হিট এখন একটাই জুটি। লায়লা মজনু, হীর রাঞ্ঝাকেও টক্কর দেওয়ার ক্ষমতা রাখে শোভন বৈশাখী। যে যাই বলুক না কেন, লোকের কথায় কর্ণপাতও করবে না এই জুটি।


অনীকের ইউটিউব চ‍্যানেলে প্রকাশ‍্যে এসেছে গানের ভিডিওটি। মাত্র ১৩ ঘন্টায় ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ দেখেছে এই ভিডিও। কমেন্ট বক্সেও অনীকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ শ্রোতারা। ইতিমধ‍্যেই হিট শোভন-বৈশাখী। তবে কিছু মানুষ নিন্দা করতেও ছাড়েননি। একজন লিখেছেন, অনীক গুণী শিল্পী। অন‍্যের ব‍্যক্তিগত বিষয় নিয়ে এ ধরনের চটুল গান পরিবেশন অনীককে মানায় না।

আরেকজনের বক্তব‍্য, অন‍্যের নকল করে যদি টাকা রোজগার করতে হয় তাহলে এবার নিজেকে নিয়ে ভাবার সময় এসেছে অনীকের। এ ধরনের ‘ফালতু’ কাজে সময় নষ্ট না করে বরং যারা সা রে গা মা পা তে ভোট করে জিতিয়েছিল তাদের মূল‍্যবান সময়ের দাম দেওয়ার চেষ্টা করুক অনীক।

রাজনৈতিক মহলে এই মুহূর্তে সবথেকে চর্চিত জূটি শোভন বৈশাখী। অবশ‍্য তাঁদের নিয়ে চর্চাটা এখন আর শুধুই রাজনৈতিক জগতের গণ্ডিতে আটকে নেই। কখনো তা তা থৈথৈ নেচে, কখনো একে অপরের বিষয়ে প্রেমের কথা বলে সকলের নজর কেড়ে নেন। বিতর্ক, সমালোচনাও কম হয় না। কিন্তু ওই যে বলে, ‘পেয়ার কিয়া তো ডরনা কেয়া?’

দূর্গাপুজোর বিজয়া দশমীর দিন বৈশাখীর সিঁথি রাঙিয়ে দিয়ে নিজেদের প্রেমকে স্বীকৃতিও দিয়েছেন শোভন। অধ‍্যাপিকা বলেন, “আমাদের মধ‍্যে কোনো স্বীকৃতির অভাব ছিল না। যেটা ছিল না সেটা সমাজের স্বীকৃতি। এখন সমাজ দেখছে যে আমাদের মধ‍্যে সততার কোনো অভাব ছিল না। আমরা দুটো সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসে, দুটো প্রাণহীন সম্পর্ককে শেষ করে আমাদের যেখানে আনন্দ সেই আশ্রয়টা খুঁজে নিয়েছি।”

Related Articles

Back to top button