টাইমলাইনভারতরাজনীতি

অসম-মিজোরাম সীমান্ত সংঘর্ষে প্রাণ হারালেন ৬ জওয়ান, শোক প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ শিলংয়ে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বৈঠক সেরে ফিরে আসতেই সীমানা বিতর্কে জড়িয়ে পড়ল অসম (assam) ও মিজোরাম (mizoram)। লায়লাপুর সীমানার কাছে, অসমের সরকারি আধিকারিদের উপর ইট, পাথর ছোঁড়া হয়ে বলে অভিযোগ উঠেছে মিজোরামের নামে। শুধু আই নয়, সেখানে গুলি চলে বলেও জানা গিয়েছে।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠায় সীমান্ত এলাকায় পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করেছে অসমের হিমন্ত বিশ্বশর্মার সরকার। আবার স্যোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়েও পরে ওই এলাকার সংঘর্ষের ভিডিও। একদিকে অসম মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা এবং অন্যদিকে মিজোরাম মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গা, দুজনেই পৃথক পৃথক ভাবে ট্যুইটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের হস্তপক্ষেপ দাবি করেছেন।

ঘটনার ভিডিও ট্যুইটারে শেয়ার করার করেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। সেইসঙ্গে মিজোরাম মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে লেখেন, ‘সুপার সীমানা ঘাঁটি থেকে সরে যেতে বলছেন মিজোরাম পুলিশ। না সরলে, হিংসা চলবে বলেও বলা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কিভাবে সরকার চলবে, সেবিষয়ে দ্রুত হস্তক্ষেপ দাবি করছি’।

অন্যদিকে এই ঘটনার নিস্পত্তির জন্য ট্যুইটারে ভিডিও শেয়ার করেন মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গাও। তিনিও ট্যুইটারে ভিডিও শেয়ার করার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মাকে ট্যাগ করে লেখেন, ‘অমিত শাহজি দয়া করে এই বিষয়টি দেখুন। এই সমস্যার এখনই সমাধানের প্রয়োজন’।

আর ইতিমধ্যে জানা যাচ্ছে যে, দুই রাজ্যের মধ্যে সীমান্তে হওয়া বিবাদে অসম পুলিশের ৬ জন কর্মী নিহত হয়েছে। অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা নিজেই এই কথা জানিয়েছেন। অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা নিহত পুলিশকর্মীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button