টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

বিরাট কোহলিকে পিছনে ফেলে T20-তে এই অনন্য মাইলফলক ছুঁয়ে ফেললেন বাবর আজম  

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: কাল শতরান করে নিজের দেশকে সিরিজে সমতা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করেছেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। এটি ছিল তার আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি কেরিয়ারের দ্বিতীয় শতরান। সেই সঙ্গে তিনি পাকিস্তানের অধিনায়ক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি শতরান করার রেকর্ডটিও নিজের নামে করে নিয়েছেন। সবমিলিয়ে বলাই যায় যে বৃহস্পতিবার রাতটা বাবরের কেরিয়ারের অন্যতম একটা স্মরণীয় রাত।

এশিয়া কাপ থেকেই যেন ছন্দ হারিয়ে ফেলেছিলেন বাবর আজম। এশিয়া কাপের আগে তিনি ছিলেন দুরন্ত ছন্দে। কিন্তু এশিয়া কাপে একবারও তিনি ৩০ রানের গণ্ডি অতিক্রম করতে পারেননি। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সাত ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে হারের মুখ দেখতে হয়েছিল এবং সেদিনও ব্যাট হাতে বেশ ফিকে ছিলেন বাবর। স্বাভাবিকভাবেই পাকিস্তান এবং গোটা বিশ্বের মিডিয়া তার কিছুটা সমালোচনা করেছিল।

কিন্তু সেইসব সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়ে দুরন্ত ইনিংস খেলেছেন বাবর। ৬২ হলে নিজের শতরান সম্পূর্ণ করার পরে তিনি মোট ৬৬ বল খেলে ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন। কিছুদিন আগে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে থেকে একই মেজাজে শতরান করে ছন্দে ফিরেছিলেন বিরাট কোহলি। বাবর আজমও কিছুটা একই ভঙ্গিতে অফফর্ম কাটিয়ে ছন্দে ফিরলেন।

এদিন অবশ্য তিনি বিরাট কোহলিকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন একটি ক্ষেত্রে। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সব রকমের ম্যাচ অর্থাৎ ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট, আন্তর্জাতিক ম্যাচ সব মিলিয়ে দ্রুততম ৮০০০ রানসংগ্রাহক হওয়ার তালিকায় তিনি বিরাট কোহলিকে ছাড়িয়ে গিয়েছেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই তার এই কৃতিত্বে উচ্ছ্বসিত পাকিস্তান ক্রিকেট ভক্তরা।

বিরাট কোহলির টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৮০০০-রান পূর্ণ করতে সময় লেগেছিল ২৪৩ ম্যাচ। বাবর আজমের তার চেয়ে ২৫টি ম্যাচ কম লাগলো। অর্থাৎ মাত্র ২১৮ টি ম্যাচ খেলেই এই মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেছেন পাক অধিনায়ক। দ্রুততম ৮০০০ রান সংগ্রাহকদের মধ্যে এতদিন বিরাট কোহলি দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন। কিন্তু এবার থেকে সেই জায়গাটা বরাদ্দ হয়ে গেল বাবর আজমের জন্য। প্রথম স্থানে রয়েছেন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় আইকন ক্রিস্টোফার হেনরি গেইল। তিনি ৮০০০ রান করতে সময় নিয়েছিলেন ২১৩ ম্যাচ।

 

Related Articles