টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘শুভেন্দুর বাড়িতে কেন ইডির তদন্ত হবে না?’ কেন্দ্রীয় এজেন্সির তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলে কটাক্ষ বাবুলের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গত বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বেও একজন যেখানে তৃণমূল কংগ্রেসের (Trinamool Congress) বিশ্বস্ত সৈনিক ছিলেন, তো অপরজন আবার বিজেপির (BJP) কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় জায়গা করে বসেন। তবে বিগত কিছু সময়ে বদলেছে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট। উল্লেখিত দুজনের রাজনৈতিক অবস্থান বর্তমানে ঘুরে গিয়েছে  ১৮০ ডিগ্রি। একদিকে শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari) তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বর্তমানে বিজেপির দলনেতা, আবার অপরদিকে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। বর্তমানে তাদের সম্পর্ক একপ্রকার সাপে-নেউলে আর সেই ধারা বজায় রেখে গতকাল শুভেন্দুকে উদ্দেশ্য করে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন বাবুল। তৃণমূল নেতার প্রশ্ন, “শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে কেন ইডির তদন্ত হবে না?”

উল্লেখ্য, গত রবিবার তৃণমূল কংগ্রেস সরকারকে উদ্দেশ্য করে একের পর এক আক্রমণ শানান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। একই সঙ্গে বাংলায় বিজেপিকে ক্ষমতায় আনার সওয়ালও করেন তিনি। শুভেন্দু জানান, “বাংলায় তৃণমূল সরকার দুর্নীতিগ্রস্ত। একের পর এক নেতারা ক্রমশ দুর্নীতি করে চলেছে। তবে আমরা যদি বাংলায় ক্ষমতায় আসি, তবে উত্তর প্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ এবং অসমে হিমন্ত বিশ্ব শর্মার মতো রাষ্ট্রবিরোধী শক্তিদের বিরুদ্ধে বুলডোজার চালিয়ে দেব। সকল দুর্নীতি বন্ধ হবে।” একই সঙ্গে সিবিআই এবং ইডির তদন্তপ্রক্রিয়া নিয়েও একাধিক মন্তব্য করতে শোনা যায় বিজেপি নেতাকে আর গতকাল সেই প্রসঙ্গ উঠতেই একপ্রকার ঝাঁঝিয়ে ওঠেন বাবুল।

গতকাল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষ্যে মেদিনীপুরের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন তৃণমূল কংগ্রেস মন্ত্রী। সেখানে শুভেন্দুকে উদ্দেশ্য করে তাঁর পাল্টা প্রশ্ন, “শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে কত টাকা লুকানো রয়েছে, সে প্রসঙ্গে কেন তদন্ত হবে না? ওর বিরুদ্ধেও তদন্ত হওয়া উচিত। বাংলায় এখন সিবিআই এবং ইডি তদন্ত করে চলেছে। ওদের উচিত, শুভেন্দুর বাড়িতে একবার যাওয়া। বিরোধীদের বিরুদ্ধেই বর্তমানে শুধু তদন্ত হচ্ছে। এটা অনুচিত।”

একই সঙ্গে গতকাল বাবুল, তাঁর পুরানো দল বিজেপি এবং কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন। তিনি জানান, “বিজেপির অনেক নেতা রয়েছে, যাদের কোনরকম জ্ঞান নেই। তা সত্ত্বেও বিপুল পরিমাণ অর্থ নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এর বিরুদ্ধে তদন্ত হওয়া উচিত।” একইসঙ্গে তিনি বলেন, “বর্তমানে রাজ্যে ইডি কেবলমাত্র বিরোধীদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে চলেছে। মনে হচ্ছে, বিজেপি যেন ধোয়া তুলসী পাতা। এর ফলে মানুষের বিশ্বাসযোগ্যতা ক্রমশ কমে যাচ্ছে। ওদের উচিত, শুভেন্দু অধিকারীর পাশাপাশি বিজেপি নেতাদের বাড়িতেও তদন্ত করা।”

Related Articles