টাইমলাইনটেক নিউজভারত

রাইড শেয়ারিং ইন্ডাস্ট্রিকে আরও এগিয়ে 30,000 থেকে 35,000 টাকার মধ্যে বৈদ্যুতিক স্কুটার আনছে বাজাজ

বাংলাহান্ট ডেস্ক- বৈদ্যুতিক দ্বি-চাকার সাথে রাইড শেয়ারিং ইন্ডাস্ট্রিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবার চিন্তা ভাবনা করছে বাজাজ। কিছুদিন আগেই বাজাজ জানিয়েছিল, তারা ৩৫,০০০ টাকার নিচে বৈদ্যুতিক স্কুটার তৈরিতে কাজ করছে। ইউলুর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও – অমিত গুপ্ত জানিয়েছেন বৈদ্যুতিক স্কুটারগুলির দাম 30,000 থেকে 35,000 টাকার মধ্যে হবে।

ইউলু চলতি বছরের শেষের দিকে বাজাজ থেকে কমপক্ষে ১ লক্ষ বৈদ্যুতিক দ্বি-চাকার গাড়ি কেনার চেষ্টা করছে। দিল্লি, মুম্বই ও বেঙ্গালুরুসহ মেট্রোপলিটন ভারতীয় শহরগুলিতে বর্তমানে গণনাটি মাত্র 4000 বৈদ্যুতিক স্কুটারের তুলনায় কম।

এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, “আমরা প্রতি বাইকে প্রায়  600 ডলার ব্যয় করছি। আমরা সেগুলি চীনে তৈরি করে ভারতে একত্রিত করছি। বাজাজ অটো বোর্ডে আসার সাথে সাথে আমরা মধ্যমে দীর্ঘমেয়াদে দামটি 500 ডলারে নামিয়ে আনতে পারি। ৪০,০০০ টাকারও বেশি থেকে আমরা এটিকে ৩০,০০০-৩৫,০০০ ভারতীয় টাকায় নামিয়ে আনতে পারি। ”

পাশাপাশি, ৭০-এর দশকে ‘হামারা বাজাজ’ প্রচারের মাধ্যমে সাড়া ফেলা স্কুটার ‘চেতক’ আবার ফিরছে বাজারে। উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণমন্ত্রী নিতিন গডকড়ী ও নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত।

বাজাজের চেতক মানেই মধ্যবিত্তের কাছে এক নস্টালজিয়া। ‘হামারা বাজাজ’ এর চেতক ছিল মধ্যবিত্তের কাছে পরিবারের একজন। নামীদামী বাইক বা স্কুটারের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় না পেরে  ভারতের বাজার থেকে হারিয়ে যায় চেতক।  এবার দীর্ঘ ১৪ বছর পর বাজাজ চেতক নতুন ভাবে আসছে মধ্যবিত্তের কাছেই।

Back to top button