টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

শাঁখা সিঁদুরের দিব্যি খেয়ে ফের স্বামীর ঘরে! রাজমিস্ত্রি প্রেমিকদের ভুলেই গেলেন বালির গৃহবধূরা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর পাচ্ছিলেন না প্রেমিকাদের খোঁজ। পরিচিত মাধ্যমে খোঁজ নিয়েও তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছিলেন না রাজমিস্ত্রি প্রেমিককরা। কিন্তু এখন দেখা গেল, গল্প মোড় নিল নতুন পথে। বালির পলাতক গৃহবধূ কেসে দেখা গেল এক নতুন ঘটনা।

জানা গিয়েছে, স্বামীর ঘরে ফিরে গিয়ে দিব্যি সুখে সংসার শুরু করে দিয়েছে সেই দুই গৃহবধূ রিয়া এবং অনন্যা। শুধু তাই নয়, প্রেমিক রাজমিস্ত্রিদের কাছে ফিরে যাওয়ার কোন প্রশ্নই হয় না বলেও জানান তাঁরা। এমনকি ওই দুই রাজমিস্ত্রি তাঁদের ফুঁসলিয়ে নিয়ে গিয়েছিল বলেও দাবি করেছেন রিয়ার স্বামী পলাশ কর্মকার।

রিয়ার স্বামী পলাশ কর্মকার জানান, ‘ওরা দুজনে সুরক্ষিত জায়গাতেই রয়েছে। এমনকি ওরা ডিভোর্সের কথাও ভাবেনি। আমার বাবা অসুস্থ থাকায় সেই বিষয় নিয়েই ওরা হাসপাতালে দৌড়াদৌড়ি করত। আর রাজমিস্ত্রিদের কাছে ফিরে যাওয়ার কোন প্রশ্নই হয় না বলে জানিয়েছেন তাঁরা’।

তিনি আরও জানান, ‘ওদের কোন দোষ নেই। সব দোষ ওই দুই রাজমিস্ত্রি শুভজিৎ দাস ও শেখর মজুমদারের। ওরা ক্রিমিনাল। আমাদের বাড়ির দুই বউকে ওরা ফুঁসলিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। স্ট্যান্ডার্ডও আলাদা ওদের। রিয়া ও অনন্যার কোনমতেই ওদের সঙ্গে জীবন কাটানো উচিত নয়’।

কদিন আগেই জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে বালির নিশ্চিন্দার পলাতক গৃহবধূ কেসের সেই দুই রাজমিস্ত্রি শেখর রায় এবং শুভজিৎ দাস। জেল থেকে ছাড়া পেয়েই সেই রাজমিস্ত্রিদের বক্তব্য ছিল, ‘রাজমিস্ত্রি বলে কি আমাদের মন নেই? আমরা কি ভালোবাসতে পারি না? ওদের সঙ্গেই আমরা সংসার করতে চাই’।

Related Articles

Back to top button