টাইমলাইনবাংলাদেশআন্তর্জাতিক

বিরিয়ানিতে কুকুর মাংস দেওয়ার অভিযোগ! বাংলাদেশের ‘আল্লাহর দান” দোকান নিয়ে তুলকালাম

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বিরিয়ানি খেতে কে না পছন্দ করে! আট থেকে আশি বছর বয়সী সকলেরই অন্যতম পছন্দের খাবার হলো এই বিরিয়ানি। তবে কখনো যদি শোনেন যে, এর ভিতরে থাকা মাংসটি গরু কিংবা ছাগলের নয় বরং এক কুকুরের, তবে কি ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি হতে পারে তা একবার ভাবুন তো! যে জিনিস কল্পনা করেই গা শিউরে ওঠে, সেটাই বর্তমানে ঘটলো বাংলাদেশের সাভারের আশুলিয়ায় নরসিংহপুর বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন এক বিরিয়ানির দোকানে, নাম ‘আল্লাহর দান-5’।

বর্তমানে কুকুরের মাংস দিয়ে বিরিয়ানি রান্না করার অভিযোগে দোকানের মালিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে বিল্লাল নামের তার এক সঙ্গী ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, ‘আল্লাহর দান’ বিরিয়ানির দোকানের মালিক রাজিব বরিশাল জেলার মুলাদি থানার নুনচর গ্রামের বাসিন্দা এবং পলাতক বিল্লাল হোসেন সম্পর্কে তার চাচাতো ভাই। আশুলিয়া এলাকায় সবমিলিয়ে তাদের মোট সাতটি বিরিয়ানির দোকান রয়েছে এবং প্রতিটি দোকান থেকেই মোটা টাকার অর্থ উপার্জন করে দুই ভাই। তবে এদিন আচমকাই ঘটে বিপত্তি।

পুলিশ সূত্রে খবর, এদিন আলমগীর হোসেন নামের এক ব্যক্তি এই বিরিয়ানির দোকানে খেতে আসেন এবং খেতে বসে কোনো কারণে তাঁর মনে সন্দেহ জাগে। এরপর সেই সন্দেহের বশেই খাবারের ভিতর থাকা মাংসের উপাদান সম্পর্কে জানতে চাইলে উল্টে তাঁকে চুপ করিয়ে দেয় রাজীবরা। পরিস্থিতি খারাপ দেখে সেই মুহূর্তে সেখান থেকে চলে গেলেও হাল ছাড়েননি সেই ব্যক্তি। পরবর্তীতে কয়েকজন সাংবাদিককে নিয়ে দোকানের উদ্দেশ্যে রওনা দেন আলমগীর। তবে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে বিল্লাল তাদের ওপরেও চড়াও হয় বলে অভিযোগ আর এরপর পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ এবং অনেক খোঁজ চালিয়ে শেষ পর্যন্ত গভীর রাতে রাজীবকে নিজেদের হেফাজতে নেয় তারা। এ বিষয়ে অভিযোগকারী জানান, “যখন আমি বিরিয়ানি খাওয়া শুরু করি, তখনই আমার সন্দেহ হয়। কিসের মাংস প্রশ্ন করাতে তারা জানায় ‘গরুর মাংস’ এবং এরপর আমার ওপরে কক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে দোকানের কর্মীরা। পরবর্তীতে আমি সেই বিরিয়ানি না খেয়ে তার দাম বাবদ 180 টাকা দিয়ে চলে আসি।”

আশুলিয়া থানার এসআই সুব্রত রায় বলেন, “দোকানটি থেকে মাংস সংগ্রহ করে বর্তমানে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। একবার পরীক্ষা শেষ হলেই আমরা নিশ্চিত জানতে পারব যে, আদেও সেখানে কুকুরের মাংস ব্যবহার করা হয়েছিল কিনা!” অভিযুক্ত রাজীবকে 54 ধারায় মামলা দিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে এদিন জানান সুব্রত বাবু।

Related Articles

Back to top button