টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

বিজেপি, RSS করলে ধর্ম থেকে বহিষ্কার হতে হবে! হুঁশিয়ারি বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়েশনের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর পরপর বাংলার ইমাম সংগঠন রাজ্যের মুসলিম সম্প্রদায় মানুষদের বিজেপি, আরএসএস, VHP দল গুলোর থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে। এতে তাঁদের এবং তাঁদের পরিবারের ভালো হবে বলে জানিয়েছে বাংলার ইমাম সংগঠন (Bengal Imams Associations)। শুক্রবার বাংলার ইমাম সংগঠনের সভাপতি মোঃ ইয়াহিয়া এই ঘোষণা করেছেন। উনি বলেছেন, বিজেপির বর্তমান অবস্থা হল ‘অ্যান্টি ইসলাম, অ্যান্টি মুসলিম।”

সংগঠনের পক্ষ থেকেও এও বলা হয়েছে যে, একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে নরেন্দ্র মোদী কীভাবে একটি ধর্ম বিশেষের ভূমি পুজোয় অংশগ্রহণ করলেন? এটি দেশের ধর্মনিরপেক্ষতার উপরে ব্যাপক আঘাত। এবং সংবিধান শপথ বিরোধী কাজ। তাঁরা জানিয়েছেন, এই কাজ কোনদিনও একটি গণতান্ত্রিক দেশে কল্পনা করা যায় না।

সংগঠনের পক্ষ থেকে অভিযোগ করে বলা হয়েছে যে, করোনার কালে ইচ্ছে করে তাবলীগ জামাত-এর সদস্যদের উপর দোষ চাপানো হয়েছিল। বেআইনি ভাবে তাবলীগদের কোয়ারেন্টাইন এবং অ্যারেস্ট করা হয়েছিল। তাঁদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়েছে। তাঁদের দোষ একটাই, তাঁরা মুসলিম। সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়, রাম মন্দিরের পুরোহিত সমেত বেশি কিছু মানুষ করোনায় আক্রান্ত হলেও তাঁদের বিরুদ্ধে কোন কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয় নি।

সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, গণতান্ত্রিক পথে নির্বাচিত সরকার শুধুমাত্র আরএসএস আর বিজেপির লোকেদের সন্তুষ্ট করতে এই কাজ করছে। আরেকদিকে, মুসলিমদের হেনস্থা করা, তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করা এবং গ্রেফতার করা এখন দেশে নরমাল ব্যাপার হয়ে গিয়েছে। সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, শুধুমাত্র ধান্দাবাজির জন্য হিন্দু ধর্মকে হাইজ্যাক করা হচ্ছে। প্রতারণা করা হচ্ছে কোটি কোটি হিন্দুদের সাথে।

সংগঠন জানায়, দেশে কমপক্ষে ২০ থেকে ২৫ লক্ষ মন্দির রয়েছে, সেটা নিয়ে মুসলিমদের কোন সমস্যা ছিল না, আজও নেই। তাঁরা জানায়, আরএসএস, বিজেপি হিন্দু ধর্মের নয়। তাঁরা আলাদা একটি ধর্ম বানিয়েছে। সেটাও হিন্দু বিরোধী। এরা একটি মন্দির বানানোর আগেই হাজার হাজার মুসলিমদের কোতল করেছে। তাঁদের মান ইজ্জ্বত লুঠ করেছে। তাঁরা জানায়, এটা রামরাজ্য অথবা হিন্দু ধর্মের স্থাপনা নয়। এটা আরএসএস বিজেপির মুসলিম বিরোধিতার বাৎসরিক উদযাপন।

ভাইরাল হওয়া সেই চিঠি

সংগঠন জানায়, আরএসএস-বিজেপি ধর্ম আর তাঁদের সদস্যগণেরা মুসলিম এবং ইসলামের প্রধান শত্রু হয়ে উঠেছে। ফ্যাসিবাদের চরম বহিঃপ্রকাশ হতে চলেছে ভারতবর্ষে। হিন্দু ধর্মকে ঢাল করে গণতান্ত্রিক পরিকাঠামো ভেঙে ফেলা হচ্ছে। সংগঠন জানায়, হাদিসের বয়ান অনুযায়ী, কোন ব্যাক্তি যদি ইসলামের শত্রুর শক্তি বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে তাঁদের দল্ভুক্ত হয়, তাহলে সে আর মুসলিম থাকবে না। সুতরাং যেসমস্ত মুসলিম ব্যাক্তিরা বিজেপি, আরএসএস এর সাথে যুক্ত আছেন তাঁরা নিজেদের অবস্থান ভেবে দেখুন।

ভাইরাল হওয়া সেই চিঠি

সংগঠনের পক্ষ থেকে বলে হয়, আগামী দিনে আপনাদের পরিবারও ছাড় পাবে না। ভেবে দেখুন তওবা তওবা করবেন, না কি আরএসএস, বিজেপির পতাকা বহন করবেন। সংগঠন বাবরি মসজিদ ভেঙে রাম মন্দির বানানোর বিরোধিতাও করে। এবং হুঁশিয়ারি দিয়ে বলে, আগামী দিনে সংবিধানের মধ্যে থেকে এর প্রতিবাদ করা হবে। আপনাদের বলে দিই, বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়েশনের নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেই চিঠি ভাইরাল হচ্ছে, সেটির সত্যতা আমাদের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয় নি। 

Back to top button
Close