টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসে লকডাউন প্রত্যাহার করল নবান্ন!

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আবারও রাজ্যে লকডাইন নিয়ে তৈরি হল ধোঁয়াশা। এর আগেই তৃণমূলের (All India Trinamool Congress) ছাত্র সংগঠন ২৮ আগস্ট রাজ্য থেকে লকডাউন প্রত্যাহার করার দাবি জানিয়েছিল, তখন নবান্ন থেকে কিছু না বলা হলেও, এবার ২৮ আগস্টের দিন লকডাউন প্রত্যাহার করা হল। যদিও এই লকডাউন প্রত্যাহার নিয়ে ভিন্ন কারণ দেখিয়েছে নবান্ন। বুধবার বিকেলে নবান্নের তরফ থেকে জারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহে টানা পাঁচদিন ব্যাঙ্ক ও ব্যবসা জনিত সমস্যা হবে বলে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছিল। আর সেটার বিবেচনা করেই, আগামী ২৮ আগস্ট লকডাউন প্রত্যাহার করা হচ্ছে।

মমতা ব্যানার্জী/ Mamata Banerjee

নবান্ন অনুযায়ী, এমাসের বৃহস্পতিবার ২০ আগস্ট, শুক্রবার ২২ আগস্ট, পরের বৃহস্পতিবার ২৭ আগস্ট এবং সোমবার ৩১ আগস্ট গোটা রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে। তৃণমূলের ছাত্র পরিষদ প্রথমেই লকডাউনের এই দিনটি নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিল। তাঁরা নবান্নের কাছে আবেদন পাঠিয়ে বলেছিল, নবান্ন যেন ওই দিন লকডাউন প্রত্যাহার করে। কারণ সেই দিন তাঁদের প্রতিষ্ঠা দিবস।

ছাত্র পরিষদের এই আবেদনের পর মানা হচ্ছিল যে, ওই দিন লকডাউন প্রত্যাহার করবে রাজ্য। আর আজ সেই আশঙ্কাই শিলমোহর বসাল নবান্ন। এর আগে, বিশেষ সম্প্রদায়ের অনুরোধে বকরি ঈদের পরের দিন লকডাউন প্রত্যাহার করেছিল রাজ্য। এই নিয়ে মোট পাঁচবার লকডাউন নিয়ে নোটিফিকেশন জারি করা হল রাজ্যের তরফ থেকে। কিন্তু বারবার অনুরোধ স্বত্বেও ৫ই আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর দিনে লকডাউন প্রত্যাহার করা হয় নি।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মমতা ব্যানার্জীকে অনুরোধ করে বলেছিলেন যে, ৫ই আগস্ট যেন লকডাউন প্রত্যাহার করা হয়। শুধু দিলীপ ঘোষই না, রাজ্যের হিন্দু সংগঠন গুলোও ৫ই আগস্ট লকডাউন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছিল, কিন্তু সেদিকে কর্ণপাত করেনি রাজ্য। আর এবার শাসক দলের ছাত্র সংগঠনের প্রতিষ্ঠা দিবসের দিনে লকডাউন প্রত্যাহার করা হল।

Back to top button
Close