টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

অবিশ্বাস্য! ঘণ্টায় ২০৮ কিমি বেগে বল করলেন ভুবনেশ্বর কুমার, ভাঙলেন শোয়েব আখতারের রেকর্ড

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শুরুটা জয় দিয়েই করলো ভারত। ডাবলিনের দ্য ভিলেজ স্টেডিয়ামে ভারতকে বেশ কড়া প্রতিদ্বন্দিতা উপহার দিয়েছিল আয়ারল্যান্ড। কিন্তু দিনের শেষে দুই দেশের ক্রিকেটের মধ্যে যে বিশাল ফারাক তা আরেকবার প্রমাণিত হলো। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ৭ উইকেটে জয় পেয়েছে ভারত।

ম্যাচে ভারতের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন যুজবেন্দ্র চাহাল এবং ভুবনেশ্বর কুমার। দুজনেই একটি করে উইকেট পেয়েছেন। বাকি বোলাররা যেখানে ওভার প্রতি ১০ রানের বেশি করে রান দিয়েছেন। সেখানে এই দু’জনকে কি সামলাতে সমস্যায় পড়েছে আইরিশ ব্যাটসম্যানরা। ভুবনেশ্বর এবং চাহাল তিন ওভার করে হাত ঘুরিয়ে যথাক্রমে ১৬ এবং ১১ রান দিয়ে একটি করে উইকেট পেয়েছেন। কিন্ত ভুবনেশ্বর কুমার শিরোনামে এসেছেন একটি আলাদা কারণের জন্য। সেই কারণটা উল্লেখ করার আগে ম্যাচের সারসংক্ষেপ একবার উল্লেখ করে নেওয়া হলো।

বৃষ্টির কারণে ম্যাচ শুরু হতে দেরি হয় এবং যখন ম্যাচ শুরু হয় তখন তা ২০ ওভার থেকে কমে ১২ ওভারের হয়ে দাঁড়ায়। টসে জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। শুরুতে বেকায়দায় পড়লেও শেষদিকে হ্যারি হেক্টরের দাপুটে ৬৪ রানের ইনিংসে ভর করে ১২ ওভারে ১০৮ রান তোলে আয়ারল্যান্ড। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দীপক হুডার ৪৭-এ ভর করে ১০ ওভারের মধ্যে সেই রান তুলে নেয় ভারত। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন ঈশান কিষান এবং হার্দিক পান্ডিয়া। বল হাতে আবিষ্কার ভুবনেশ্বর কুমার এবং যুজবেন্দ্র চাহাল এর মত একটি উইকেট পেয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক।

ম্যাচের একদম প্রথম ওভারে আইরিশ ব্যাটসম্যানরা যখন ব্যাট করছিলেন তখন বল হাতে এগিয়ে আসছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। তিনি ম্যাচে প্রথম বলটি ডেলিভারি করার পর দর্শকরা চমকে ওঠেন। কারণ স্পিডো মিটারের কাঁটা তখন ২০১ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় গতিবেগে ছুঁয়েছিল। দ্বিতীয় বলে ফের চমক এবার স্পেরোমিটারের কাটা ছুঁয়েছে ২০৮ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। আজ পর্যন্ত বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বলটি করেছিলেন শোয়েব আক্তার সেই বলের গতি ছিল ১৬১.৩ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। তবে তবে কি হবী শোয়েব আখতারের রেকর্ড ভেঙ্গে দিলেন! অবশ্যই তা নয়। ভুবনেশ্বর কুমার ধীরে ধীরে কেরিয়ার যত এগিয়েছে, তার বলের গতিও বাড়িয়েছেন, এই কথাটা ঠিক। কিন্তু তা বড়জোর ১৪০ কিমি প্রতি ঘন্টা। কালকের এই ঘটনার পেছনে সম্প্রচারকারীদের কিছু যান্ত্রিক গোলযোগই কাজ করেছিল।

Related Articles

Back to top button