টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারতরাজনীতি

হারানো জমি পুনরুদ্ধারে লোকসভা নির্বাচনে বাড়তি নজর বাংলায়, গঠিত হচ্ছে বিজেপির বিশেষ টিম

বাংলাহান্ট ডেস্ক : এগিয়ে আসছে লোকসভা নির্বাচনের সময়। ক্ষমতা ধরে রাখতে জোরকদমে ইতিমধ্যেই মাঠে নেমে পড়েছে গেরুয়া শিবির। কেন্দ্রে তো বটেই সেই সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন রাজ্যগুলোতেও ক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে মোদী সরকার। দলের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, গত লোকসভা নির্বাচনে দেশের যে ১৪৪টি আসনে সাফল্য আসেনি, সেই আসন গুলিতেই এবার বিশেষ নজর দেওয়া হবে। বাংলায় এমন লোকসভা আসনের সংখ্যা ১৯। কেন্দ্রের নির্দেশমতো বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্বরা আসনের তালিকা প্রকাশ্যে না এনেই দলের অভ্যন্তরে প্রস্ততি শুরু করে দিয়েছে।

বিগত বছরের ভোটের অঙ্ক বলছে, গত লোকসভা নির্বাচনের পরে বাংলার আসানসোল বাবুল সুপ্রিয়র পদত্যাগের কারণে হাতছাড়া হয়ে যায় গেরুয়া শিবিরের। অন্য দিকে, গত রবিবার উত্তরপ্রদেশে আজমগড়, রামপুর আসন জিতেছে বিজেপি। তবে, সূত্রের খবর, ২০১৯ সালের ফলাফলের নিরিখেই সমীক্ষার ভিত্তিতে নতুন আসনের লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রাথমিক ভাবে সাফল্য আসেনি এমন ১৪৪টি আসনের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের উপর। শুধু লোকসভা নয়, তার অন্তর্গত বিধানসভা আসনগুলিতেও সংগঠনের অবস্থা সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ করা হবে। ‘লোকসভা প্রবাস যোজনা’ নামের ১৮ মাসের এক কর্মসূচিতে কেন্দ্রীয় কমিটির পাশাপাশি প্রতিটি রাজ্যেও আলাদা কমিটি গড়া হবে। এ ছাড়াও, লোকসভা আসন ধরে ধরে হবে ‘ক্লাস্টার কমিটি’। এই কমিটিরও নেতৃত্বে থাকবেন একজন করে মন্ত্রী।

কেন্দ্রের নজরে থাকা সাফল্যহীন আসনগুলিতে ওই এলাকার বাসিন্দা নন এমন একজন পর্যবেক্ষক থাকবেন। তার সাথে ওই এলাকার বাসিন্দা এমন একজন আহ্বায়ক থাকবেন। পরে একই ভাবে প্রতিটি বিধানসভা এলাকাতেও এমনই কমিটি তৈরি করতে হবে। প্রাথমিক ভাবে ঠিক হয়েছে, মন্ত্রীরা তিনদিন করে থাকবেন এক একটি লোকসভা এলাকায়। সেই সময়ে বিভিন্ন স্তরের সাংগঠনিক বৈঠকের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষদের সঙ্গে আলাপ আলোচনার বিষয়টিও বিশেষ ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া শিবিরের তরফে প্রচারের ত্রুটি না থাকলেও বাংলায় বিজেপি আশানুরূপ ফল করতে না পারায় দলের ভিতরেই এমন কর্মসূচি নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। তবে, আসন্ন ২০২৪ সালের ভোটে আসন সংখ্যা বাড়াতে এখন থেকেই যে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে তা বলাই বাহুল্য।

Related Articles

Back to top button