টাইমলাইনভারতরাজনীতি

গুজরাটে ফের গেরুয়া ঝড়! প্রায় ১৫০ আসন জিতবে বিজেপি বলছে সমীক্ষা! গুটিয়ে যাবে আপ-কংগ্রেস

বাংলাহান্ট ডেস্ক : আসন্ন গুজরাত বিধানসভা (Gujarat Bidhansabha Election) নির্বাচন। ইতিমধ্যেই এবিপি সি-ভোটার (ABP – C Voter) সমীক্ষা জানাতে শুরু করে দিয়েছে কী ঘটতে চলেছে মোদির (Narendra Modi) রাজ্যের বিধানসভা ভোটে। এবিপি সি-ভোটার সমীক্ষা দাবি করেছে গুজরাতে সরকার গড়বে বিজেপি। অর্থাৎ ২০২৪-র লোকসভা নির্বাচনের আগে গুজরাটে সরকার গড়ে আরও শক্তি বাড়াবে গেরুয়া শিবিরের।

২০২৪-র বিধানসভা ভোটের আগে গুজরাতের বিধানসভা ভোট। মোদি-শাহের আঁতুরঘর বললে ভুল হবে না। সেকারণেই উন্নয়নে এখন গুজরাতের দিকে বেশি মন দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি – অমিত শাহরা। কয়েরদিন আগেই আহমেদাবাদ থেকে মুম্বই ভিস্তাডম এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। একের পর এক প্রকল্পের উদ্বোধন করে চলেছেন তিিন। প্রায়ই গুজরাতে যেতে দেখা যাচ্ছে মোদি-শাহ জুটিকে। তার অন্যতম কারণ গুজরাতের বিধানসভা ভোট। ২০২৪-র লোকসভা ভোটের আগে এক প্রকার বিেজপি অ্যাসিড টেস্ট হবে গুজরাতের এই বিধানসভা ভোট।

এরইমধ্যে গুজরাতে এবারও সরকরা গড়বে বিজেপি। এমনই দাবি করেছে এবিপি সি-ভোটার সমীক্ষা। গুজরাতে এবার বিজেপির প্রবল প্রতিপক্ষ হয়ে উঠেছে আম আদমি পার্টি। এবিপি সি ভোটার সমীক্ষা বলছে বিধানসভা ভোটে গুজরতে বিজেপি পাবে ৬৩ শতাংশ ভোট। আম আদমি পার্টি পাবে ১৯ শতাংশ ভোট। কংগ্রেস পাবে ৯ শতাংশ ভোট আর অন্যান্যরা পাবে ২ শতাংশ ভোট। কাজেই গুজরাতে আপ টক্কর দিলেও সরকার গড়তে পারবে না। পদ্ম শিবির ১৩৫ থেকে ১৪৩ টি আসন নিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বলেই দাবি এবিপি-সি ভোটারের।

গুজরাতে ভোটের বড় ইস্যু হতে চলেছে কর্মসংস্থান এবং মুদ্রাস্ফীতি। এই দুটি ইস্যুতে বিজেপির উপর চাপ তৈরি করবে বিরোধীরা। কারণ মোদী সরকার দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশের কর্মসংস্থান তলানিতে এসে ঠেকেছে। কংগ্রেস থেকে শুরু করে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি ক্রমাগত মোদী সরকারকে এই নিয়ে কাঠ গড়ায় দাঁড় করিয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে অসংখ্য মানুষের কাজ গিয়েছে। তার উপরে একাধিক সরকারি ক্ষেত্রের বেসরকারিকরণ করেছেন মোদি সরকার। সেই সঙ্গে মুদ্রাস্ফীতি। মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে পরপর তিনবার রেপোরেট বাড়াতে হয়েছে।

Related Articles