টাইমলাইনভারতআন্তর্জাতিক

অর্থনীতি ধরে রাখতে ভারতীয় ছাত্রদের ফেরাতে নারাজ ব্রিটেন, দিচ্ছে লোভনীয় অফার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ব্রিটেন থেকে ভারতীয় (India) ছাত্ররা দেশ ফিরতে চাইলে, সমস্যার মধ্যে পড়েছে ব্রিটেন (UK)। বিদেশি ছাত্রদের থেকে একটা মোটা অর্থ আমদানির পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় ভুগছে ব্রিটেন। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারলে, ব্রিটেন দেওউলিয়াও হয়ে যেতে পারে।

ব্রিটেন থেকে ভারতীয় ছাত্রদের ফিরিয়ে আনতে চাইছে মোদী সরকার
করোনা ভাইরাসের (COVID-19) সংকটের মধ্যে নিজের দেশের মানুষদের বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরিয়ে আনছে ভারত সরকার। এবার ব্রিটেন থেকে ভারতীয় ছাত্রদের ফিরিয়ে আনতে চাইছে মোদী সরকার। যার ফলে ব্রিটেন সরকার এখন প্রবল সমস্যার মুখোমুখি।

ভারতে ফেরার আগে অন্তত একবার নিজের নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যোগাযোগ করুন
ব্রিটেনের অন্তরাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশক ভিভিয়ন স্টোন জানিয়েছেন, ‘এই সংকটের মুহুর্তে ব্রিটেনে পাঠরত ভারতীয় ছাত্ররা অর্থ এবং বাসস্থানের জন্য চিন্তিত। সেই কারণে তারা নিজেদের পরিবারের কাছে ফেরত যেতে চাইছে। তবে আমি ওই ছাত্রদেরকে বলল, যাবার আগে একবার অন্তত তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে কথা বলুন’।

ভারতীয় ছাত্রদের ব্রিটেনের অপমান
২০১৭ সালের নভেম্বরে তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘UK এবার থেকে ভিসা বিষয়ে কিছু বদল আনতে চলেছে। সেই সঙ্গে যেসকল ভারতীয়দের এখানে থাকার কোন অধিকার নেই, তাঁদের দেশে ফিরে যেতে হবে। আমরা ভারতীয়দের ফিরে যাওয়ার সংখ্যা বাড়িয়ে দিতে চাই’।

করোনার জেরে ভারতীয় ছাত্রদের ফেরাতে নারাজ ব্রিটেন
পূর্বে ভারতীয় ছাত্রদের সাথে দুর্ব্যবহার করলেও, বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে তাঁদের ফিরে যাওয়া আটকাতে চাইছে ব্রিটেন সরকার। ব্রিটেনের অর্থনীতিতে ভারতীয়দের প্রভাব এখন তারা অনুভব করতে পারছে। ভারত ছাড়াও কানাডা, চীন, অস্ট্রেলিয়া এবং আমেরিকা থেকে আগত বহু ছাত্রদের জন্য উন্নত প্রযুক্তির শিক্ষাক্ষেত্র প্রস্তুত করে তাঁদের থেকে মোটা টাকা কামায় ব্রিটেন।

অন্তরাষ্ট্রীয় ছাত্রের দেওয়া পড়াশুনার ফি, দেশ মধ্যস্থ ছাত্রদের তুলনায় অনেক বেশি। এই বহির্দেশিয় ছাত্রদের পরিমানের মধ্যে আমেরিকার ছাত্র সংখ্যা সবথেকে বেশি। তারপর UK, চীন, কানাডা, অস্ট্রেলিয়ার ছাত্র পরপর রয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়েছে এখন ব্রিটেনের এইসব বিশ্ববিদ্যালয়ে। জুন- জুলাইয়ের মধ্যে ভারতের ছাত্ররা অন্য দেশে শিক্ষা গ্রহনের জন্য চেষ্টা করতে পারবে। যার ফলে বহিরাগত ছাত্রদের থেকে আগত টিউশন ফিতে ভাটা পড়বে। যার ফলে প্রচুর সংখ্যক মানুষ বেরোজগার হওয়ার মুখোমুখি ব্রিটেনে।

Related Articles