টাইমলাইনভারত

অপেক্ষা মাত্র কয়েকদিন, তারপরেই ছুটবে দেশের প্রথম বুলেট ট্রেন! ডাকা হল টেন্ডার

অবশেষে দেশবাসীর স্বপ্ন পূরণ করে দেশের মাটিতে বুলেট ট্রেনের (bullet train) কাজ আরো এক কদম এগিয়ে গেল। ন্যাশনাল হাই স্পিড রেল কর্পোরেশন লিমিটেড আহমেদাবাদ-মুম্বই রুটে বুলেট ট্রেনের টেন্ডার ডাকল। এই টেন্ডারের পরিমান প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা।

নরেন্দ্র মোদি দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পরই ভারতীয় রেলে দ্রুতগামী ও অত্যাধুনিক বুলেট ট্রেন যোগ করার বিষয়ে ইতিবাচক ভূমিকা নেন। জানা যাচ্ছে, সামনের লোকসভা ভোটের আগেই বুলেট ট্রেন শুরু হয়ে যাবে দেশে। সেই লক্ষ্যেই এবার আরেক কদম এগিয়ে গেল দেশ।

মুম্বাই আহমেদাবাদ রুটটি ২৩৭ কিমি দৈর্ঘ্য। ইতিমধ্যেই সম্পূর্ণ হয়েছে জমি অধিগ্রহণের কাজ৷ এবার পরিকাঠামো তৈরির কাজ শুরু হবে। জানা যাচ্ছে, শুধু মাত্র ভারতীয় সংস্থাই এই ক্ষেত্রে দরপত্র জমা দিতে পারবে।

গুজরাতের বাপী থেকে বদোদরা ট্রাকের জন্য সবচেয়ে বড় দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এই ট্র‍্যাকটি এই মুহুর্তে ভারতের সব চেয়ে বড় বুলেট ট্রেনের রুট। এই অংশে থাকছে চারটি স্টেশন।

ইতিমধ্যেই বেশ কিছু সংস্থা এই দরপত্রে আগ্রহ দেখিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। যার মধ্যে আছে লারসন অ্যান্ড টার্বো-র মত নামী সংস্থাও। ৫০৮ কিমি দীর্ঘ এই বুলেট ট্রেন রাস্তার ৩৪৯ কিমিই মোদির রাজ্য গুজরাতে। বাকি ১৫৯ কিমি মহারাষ্ট্রে।

পাশাপাশি,  আরো এক অত্যাধুনিক ট্রেন ভারতবাসীদের উপহার দিতে চলেছে মোদি সরকার  । ভারতীয় রেল  ব্যাবস্থার আধুনিকায়নের অংশ হিসাবে এই রেল যুক্ত করতে চাইছে সরকার। ইতিমধ্যেই এই বিশেষ রেল চালানোর জন্য ভারত হেভি ইলেকট্রিস লিমিটেড(ভেল) সুইস র‌্যাপিড এজি-র সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

ম্যাগলেভ ট্রেন কি?
ম্যাগলেভ শব্দটি ইংরেজি ম্যাগনেটিক ও লেভিটেশন শব্দদুটি যুক্ত হয়ে তৈরি হয়েছে। এই প্রযুক্তিতে চৌম্বক শক্তিকে কাজে লাগিয়ে চাকা বা বল বেয়ারিং ছাড়াই কোনো বস্তুকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়। এই ম্যাগলেভ ট্রেনের প্রধানতম বৈশিষ্ট্য হল এর কোনো চাকা নেই। চাকা ছাড়াই এই ট্রেন সর্বোচ্চ ৫০০ কিমি প্রতি ঘন্টায় ছুটতে পারে। চলার সময় এই ট্রেন কোনো শব্দও করে না।

Back to top button