টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

নিয়োগ দুর্নীতিতে এবার শুভেন্দু ‘ঘনিষ্ঠ’ চঞ্চলের বিরুদ্ধে পুলিশি তদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের (Calcutta High Court) রায়ে অস্বস্তি বাড়লো বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari)। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, এবার থেকে বিজেপি (Bharatiya Janata Party) নেতা ‘ঘনিষ্ঠ’ চঞ্চল নন্দীর বিরুদ্ধে তদন্ত করবে রাজ্য পুলিশ।

সাম্প্রতিক সময়ে এসএসসি থেকে প্রাথমিক টেট সহ নিয়োগ সংক্রান্ত একাধিক দুর্নীতি মামলায় সরগরম বঙ্গ রাজনীতি। এসকল মামলায় ইতিমধ্যেই হেফাজতে রয়েছেন প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি আরও একাধিক তৃণমূল নেতা মন্ত্রী এবং শিক্ষা আধিকারিকরা গ্রেফতার হয়েছেন। এর মাঝেই এবার শুভেন্দু ‘ঘনিষ্ঠ’ চঞ্চল নন্দীর বিরুদ্ধে তদন্ত করার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। উল্লেখ্য, বর্তমান সময়ে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের আমলে রাজ্যে একের পর এক দুর্নীতি হয়ে চলেছে বলে অভিযোগ করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তবে এর মাঝেই সম্প্রতি শুভেন্দু ‘ঘনিষ্ঠ’ এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিয়োগ দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে।

কি অভিযোগ রয়েছে শুভেন্দু ‘ঘনিষ্ঠ’ চঞ্চল নন্দীর বিরুদ্ধে? এক্ষেত্রে প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিক এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিতে চাকরি দেওয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ ওঠে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠর বিরুদ্ধে। সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকে মানস কুমার সিংহ নামে এক ব্যক্তি চঞ্চলের বিরুদ্ধে বাঁকুড়া থানায় একটি এফআইআর দায়ের করেন। এক্ষেত্রে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠর বিরুদ্ধে ২০১৭ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে একাধিক স্থানে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ তোলেন ওই ব্যক্তি।

সূত্রের খবর, পরবর্তীতে পুলিশের পক্ষ থেকে এফআইআর দায়ের করা হলে তা খারিজ করার আবেদন নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের নিকট উপস্থিত হন চঞ্চল। একইসঙ্গে আদালতের কাছে রক্ষাকবচ ছেড়ে বসেন তিনি। আদালত সূত্রে খবর, এদিন রাজ্যের তরফ থেকে বলা হয়, “যদি চঞ্চল নন্দীর বিরুদ্ধে প্রাথমিক তদন্ত করা হয়, তাহলে সমস্যা কোথায়?” পরবর্তীতে উভয় পক্ষের দাবি দাওয়া শোনার পর অবশেষে শুভেন্দু ‘ঘনিষ্ঠ’ ব্যক্তির আর্জি খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট। অর্থাৎ এবার থেকে তার বিরুদ্ধে ওঠা সকল অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করতে পারবে রাজ্য পুলিশ।

Related Articles