টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

অঙ্কিতার জায়গায় চাকরি দিতে হবে ববিতাকে, ৪৩ মাসের বেতন প্রদানেরও নির্দেশ বিচারক গাঙ্গুলির

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সম্প্রতি, স্কুল সার্ভিস সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলায় বেআইনিভাবে শিক্ষকতার চাকরি পাওয়ার ঘটনায় নাম জড়ায় বর্তমান শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতার। পরবর্তীকালে কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলাটির শুনানি চলাকালে অঙ্কিতা অধিকারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, দুই কিস্তিতে সকল বেতন ফেরত দেওয়ার নির্দেশ পর্যন্ত দেওয়া হয় অঙ্কিতাকে আর এবার মন্ত্রী কন্যাকে বরখাস্ত করা পদে ববিতা সরকারকে নিয়োগ করার রায় দিলেন অভিজিৎবাবু।

উল্লেখ্য, ববিতা সরকারের মামলার ভিত্তিতেই সর্বপ্রথম কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলাটি ওঠে। প্রসঙ্গত, 2016 সালে স্কুল সার্ভিস কমিশন পরীক্ষায় বসেন ববিতা। পরবর্তীকালে মেধা তালিকায় সবার প্রথমে নামও থাকে ববিতা সরকারের। কিন্তু সেই তালিকায় নাম থাকা সত্বেও তার স্থানে চাকরি দেওয়া হয় পরেশ অধিকারী কন্যাকে। এরপরেই চাকরির ক্ষেত্রে এই বেনিয়মটিকে কলকাতা হাইকোর্টের নজরে আনেন তিনি। বিগত বেশ কয়েকদিন ধরে মামলাটির শুনানি চলার পর অবশেষে অঙ্কিতা অধিকারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এবং একইসঙ্গে সকল বেতন ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, সম্প্রতি প্রথম কিস্তির টাকা ফেরতও দিয়েছেন অঙ্কিতা। এরপরই এদিন কলকাতা হাইকোর্ট জানালো যে, অঙ্কিতা অধিকারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার পর যে পদ খালি পড়ে রয়েছে, সেখানে চাকরি দিতে হবে ববিতা সরকারকে। অর্থাৎ ইন্দিরা গার্লস হাই স্কুলে শিক্ষকের চাকরি পেতে চলেছেন ববিতাদেবী।

তবে শুধুমাত্র তাই নয়, আদালতের রায়, “অঙ্কিতা অধিকারী যেদিন থেকে স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি শুরু করেন, তবে থেকেই ববিতা সরকারের চাকরির প্রথম দিন হিসেবে ধার্য করতে হবে এবং এই সময়কালে প্রাপ্য সম্পূর্ণ বেতন দিতে হবে ববিতাকে।” এর পাশাপাশি বর্তমানে ববিতাকে সকল সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে কলকাতা হাইকোর্ট।

Related Articles

Back to top button