টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

নিশানায় কী অনুব্রত? ছুটির দিনে নিজাম প্যালসে CBI কর্তাদের পা রাখা নিয়ে তুঙ্গে জল্পনা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আজ গোটা দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে মহরম। সেই উপলক্ষ্যে সর্বত্র ছুটি পালন করছে দেশবাসী। অবশ্য সেই ছুটির দিনেই সবচেয়ে বেশি তৎপর দেখালো সিবিআইকে (CBI)। অন্যান্য দিনের তুলনায় এদিন কাজের গতি থাকে চোখে পড়ার মতো। ইতিমধ্যে কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার অতিরিক্ত ডিরেক্টর অজয় ভাটনাগর। তবে ছুটির দিনে নিজাম প্যালেসে সিবিআই অফিসারদের মধ্যে বৈঠক ঘিরে ক্রমাগত জল্পনা সৃষ্টি হয়ে চলেছে। হঠাৎ এত তৎপরতা কিসের?

সূত্র মারফত খবর মিলছে যে, গরু পাচার কাণ্ডে তদন্তকারী সকল অফিসারদের নিয়ে এদিন বৈঠক সংঘটিত হচ্ছে। তবে কি অস্বস্তি আরো বাড়তে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অনুব্রত মণ্ডলের, উঠছে প্রশ্ন।

প্রসঙ্গত, নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলার পাশাপাশি অন্যান্য একাধিক মামলার তদন্তের দায়ভার দেওয়া হয়েছে সিবিআই-এর কাঁধে। সে সকল তদন্ত যাতে সঠিক পথে এগোয় ,সেই কারণে এদিন সিবিআইয়ের অতিরিক্ত ডিরেক্টর কলকাতায় পৌঁছেছেন বলে খবর। অতীতে কলকাতায় আসলেও মহরমের ছুটির দিন নিজাম প্যালেসে পৌঁছে সিবিআই অফিসারদের সঙ্গে তাঁর বৈঠক ‘বিশেষ’ মাত্রা পেয়েছে। ইতিমধ্যেই যখন অনুভূত মণ্ডলকে একের পর এক সমন পাঠিয়ে চলেছে সিবিআই, সেই মুহূর্তে তাদের বৈঠক বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গতকাল তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অনুব্রত মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করে সিবিআই। তবে এর মাঝে শারীরিক পরীক্ষার জন্য এসে পৌঁছালেও নিজাম প্যালেস ঘুরেও তাকাননি অনুব্রত। এরপরে বীরভূমে নিজের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। পরবর্তীতে তৃণমূল নেতার চিনার পার্কে ফ্ল্যাটে গেলেও এক প্রকার খালি হাতে ফিরতে হয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে। এর মাঝেই আগামীকাল ফের একবার অনুব্রতকে সমন পাঠিয়েছে সিবিআই। ফলে আজ তাদের এই বৈঠক ঘিরে ইতিমধ্যেই একাধিক জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষী সায়গল হোসেনকে একের পর এক জেরা এবং অনুব্রত ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীদের বাড়িতে ইডির হানার মতো ঘটনা ক্রমশ চাপে রেখেছে তৃণমূল নেতাকে। আগামীকাল অনুব্রতকে জিজ্ঞাসাবাদের আগে এদিন নিজাম প্যালেসের বৈঠকে তারই আগাম প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে কিনা, সে বিষয়ে স্পষ্ট কোন ধারণা মেলেনি। আবার অপরদিকে, গত কয়েকবারের মতো আগামীকালও কি হাজিরা এড়াবেন অনুব্রত, এ সকল প্রশ্ন মাঝে বর্তমানে সরগরম বাংলা।

Related Articles