টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

এবারের বাজেটে ভাগ্য খুলে যাবে সরকারি কর্মীদের, দুটি বড় উপহার দিতে পারে সরকার

বাংলাহান্ট ডেস্ক: আর মাত্র কয়েকটা দিন। তারপরেই সংসদে সাধারণ বাজেট (Union Budget 2023) পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। দেশের বিত্তশালী থেকে আম জনতা, সবাই মুখিয়ে রয়েছেন বাজেটের দিকে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি অর্থ মন্ত্রী সংসদে কী বলবেন, তা নিয়ে জল্পনা চলছে সব মহলে। ইতিমধ্যে বিশেষজ্ঞরাও তাঁদের অনুমান জানাতে শুরু করেছেন। এর মধ্যেই উঠে আসছে একাধিক তথ্য। কর ব্যবস্থায় সংশোধনের পাশাপাশি সরকারি কর্মীদের জন্যও থাকতে পারে সুখবর। 

বহু বছর পর মাইনে বাড়তে পারে সরকারি কর্মচারীদের। একইসঙ্গে হাউজ বিল্ডিং অ্যালাওয়্যান্সের অগ্রীমও ২৫ থেকে ৩০ লক্ষ টাকা অবধি বাড়ানো হতে পারে। এমনই মত বিশেষজ্ঞদের। উল্লেখ্য, চব্বিশের নির্বাচনের আগে এটিই নরেন্দ্র মোদী সরকারের শেষ বাজেট। তাই বিশেষজ্ঞদের মত, সরকারি কর্মচারীদের সমর্থন পাওয়ার চেষ্টা করতে পারে কেন্দ্র। সংবাদমাধ্যমের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, সপ্তম বেতন কমিশনের (7th Pay Commission) অধীনে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বৃদ্ধি হতে পারে। এই আলোচনা বহুদিন ধরেই চলছে কেন্দ্রের অন্দরে। 

General Budget 2023,Budget 2023,Union Budget 2023,Nirmala Sitharaman,7th Pay Commission,House Building Allowance,Bangla,Bengali,Bengali News,Bangla Khobor,Bengali Khobor,Government,Budgetসূত্রের খবর, ফিটমেন্ট ফ্যাক্টরের মাধ্যমে সরকারি কর্মচারীদের বেতন সংশোধন করা হতে পারে। কেন্দ্রের মতে, প্রতি ১০ বছরের পরিবর্তে প্রতি বছরই কর্মীদের বেতন বাড়ানো উচিত। এর ফলে নীচু তলার কর্মীদেরও বেতন বৃদ্ধি হতে থাকবে। তাই তাঁদের উঁচু তলার আধিকারিকদের সমান বেতন পাওয়ার রাস্তা মসৃণ হবে। প্রতি বছর কর্মীদের বেতন বাড়ানোর এই চিন্তা আসলে প্রাক্তন অর্থ মন্ত্রী স্বর্গীয় অরুণ জেটলির ছিল।

2 lakh 83 thousand crore allocated for health sector, Bengal will have 675 km state roads: Nirmala Sitharaman

২০১৬ সালে তিনি সপ্তম বেতন কমিশনকে অনুমোদন দেন। সেই সময়েই তিনি কর্মীদের প্রতি বছর বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এর ফলে নীচু তলার কর্মীরা সুবিধা পাবেন। সূত্রের খবর, আর এক বছর পর তৈরি হবে অষ্টম বেতন কমিশন। তাই এই বাজেটে সরকারি কর্মীদের বেতন সংশোধনের একটি নতুন ফর্মুলা আনতে পারে কেন্দ্র। শুধু তাই নয়, হাউজ বিল্ডিং অ্যালাওয়্যান্স নিয়েও বড় দু’টি ঘোষণা করা হতে পারে বাজেটে। 

হাউজ বিল্ডিং অ্যালাওয়্যান্সের অগ্রীম ও সুদের হার বাড়ানো হতে পারে। বর্তমানে কেন্দ্রীয় কর্মীরা ২৫ লক্ষ টাকা অবধি অগ্রীম নিতে পারেন। নতুন বাড়ি তৈরি বা মেরামতের জন্য অগ্রীম বাবদ এই টাকা নিতে পারেন তাঁরা। এর উপর ৭.১ শতাংশ হারে সুদ পান তাঁরা। কিন্তু আসন্ন বাজেটে সুদের হার বাড়িয়ে ৭.৫ শতাংশ করা হতে পারে। পাশাপাশি, অগ্রীমের জন্য বরাদ্দ অর্থও ২৫ লক্ষের পরিবর্তে ৩০ লক্ষ টাকা করা হতে পারে।

Related Articles