টাইমলাইনভারতরাজনীতি

আমি মন্ত্রী পরে, আগে কোভিড ওয়ার্ডে নিযুক্ত এক মেয়ের বাবা, তাই থালি-তালির মর্মও বুঝি: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ এই মুহূর্তে সারা দেশজুড়ে চলেছে করোনার মার। সংক্রমনের সন্ত্রাসে রীতিমতো আতঙ্কিত মানুষ। যদিও কড়া লকডাউনের কিছুটা সুফল পেয়েছে ভারত। সংক্রমণ এবং উদ্বেগ দুটোই কিছুটা কমেছে। কিন্তু এখনও পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন নিয়ে অনেক ক্ষেত্রেই রয়ে গিয়েছে সমস্যা। অন্যদিকে ভবিষ্যতে রয়েছে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের চোখরাঙানিও।

আর সেই কথা মাথায় রেখেই রাজ্য এবং কেন্দ্রকে একযোগে কাজ করার বার্তা দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মনসুখ মান্ডব্য (Mansukh mandaviya)। তার নিজের মেয়েই কোভিড ওয়ার্ডে কাজ করেন, সেই প্রসঙ্গ উত্থাপন করে তিনি বলেন, “মন্ত্রী হওয়ার আগে আমি একজন বাবা। আমার মেয়ে ইন্টার্ন হিসেবে কোভিড ওয়ার্ডে কাজ করেছে। সে আমাকে বলেছে যে সে ওই ওয়ার্ডে কাজ করতে চায় এবং সে সেখানেই কাজ করে চলেছে। সেই সময় আমি থালি-তালির মর্মও বুঝেছিলাম।”

এদিন তিনি আরও বলেন এই সময়টা রাজনীতি করার নয়। অনেকেই রাজনীতি করতে চাইছেন। কিন্তু এখন হাতে হাত ধরে কাজ করার সময়। অনেক ক্ষেত্রেই রাজ্যগুলির কাছে ১০-১৫ লাখ ভ্যাকসিনের ডোজ থাকা সত্ত্বেও টিকা নেই বলে দাবি জানাচ্ছেন তারা। তার মতে, “কেন্দ্র রাজ্যগুলির থেকে পাওয়া পরিসংখ্যান একত্রিত করে প্রকাশ করে। কেন্দ্র কোনও রাজ্যকে কোভিড সংখ্যা কম করে দেখাতে বলেনি।”

UNICEF's new initiative, children to take part in parliament

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময়ই অনেক ক্ষেত্রে এই প্রসঙ্গ উত্থাপিত হয়েছিল যে কেন্দ্র মৃত্যু এবং সংক্রমণের সংখ্যা কম করে দেখাচ্ছে। বিদেশি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে ভারতে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ৩০ থেকে ৩৪ লাখও ছাড়াতে পারে। সেই সূত্র ধরেই এদিন রাজ্যগুলিকে আক্রমণ করেন মনসুখ। শুধু তাই নয়, এদিন তিনি আরও বলেন প্রধানমন্ত্রী থালি ও তালি বাজানোর যে উদ্যোগের কথা বলেছিলেন তা মানুষের মনে সাহস যুগিয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button