টাইমলাইনভারত

গালওয়ানে ভারতীয় জওয়ানদের মারে মরেছে চীনের জওয়ান স্বীকার করল বেজিং, যদিও এখনো সংখ্যা বলতে নারাজ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ পূর্ব লাদাখে (Ladakh) বিগত কয়েকমাস ধরে ভারত (India) আর চীনের মধ্যে সীমান্ত নিয়ে বিবাদ চলছে। ১৫ই জুন রাতে গালওয়ান উপত্যকায় (Galwan valley) চীন আর ভারতের জওয়ানদের মধ্যে হওয়া সংঘর্ষের পর দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চরম পর্যায়ে পৌঁছায়। দুই দেশের মধ্যে বেড়ে চলা উত্তেজনার মাঝে চীন স্বীকার করল যে, গালওয়ানে হওয়া সংঘর্ষে তাঁদের জওয়ান মারা গিয়েছে। এর আগে চীন এই কথা স্বীকার করছিল না।

চীন সরকারের মুখপত্র ‘গ্লোবাল টাইমস” জানিয়েছে যে, গালওয়ান সংঘর্ষে চীনের সেনার বড়সড় ক্ষতি হয়েছে আর বেশ কয়েকজন জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে।

গ্লোবাল টাইমসের এডিটর ইন চীফ ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং এর একটি বয়ানকে ট্যুইট করে লেখেন, ‘আমি যতদূর জানি গালওয়ান উপত্যকায় দুই দেশের মধ্যে হওয়া সংঘর্ষে মৃত চীনের জওয়ানদের অনুপাত ভারতের ২০ জন জওয়ানের থেকে কম ছিল। শুধু তাই নয়, ভারত চীনের কোনও জওয়ানকে বন্দি বানিয়েছিল না, উল্টে চীন ভারতীয় জওয়ানদের বন্দি বানিয়ে রেখেছিল।”

জানিয়ে দিই, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় চীনের সাথে চলা সীমান্ত নিয়ে বিবাদে নিজের মন্তব্য পেশ করেছিলেন। রাজনাথ সিং বলেছিলেন, ভারত সমস্ত নিয়ম আর চুক্তিকে মাথায় রেখে সীমান্তের সুরক্ষা করছে। কিন্তু চীনের তরফ থেকে বারবার সমঝোতার লঙ্ঘন করা হচ্ছে।

রাজনাথ সিং রাজ্যসভায় চীনের সাথে চলা বিবাদ নিয়ে জবাব দেওয়ার সময় বলেন, লাদাখে পরিস্থিতি গম্ভীর কিন্তু ভারতীয় সেনা প্রতিটি পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত। গালওয়ান সংঘর্ষ নিয়ে তিনি বলেন, চীনের দুঃসাহসের কারণে ভারতের ২০ জন জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন, কিন্তু ভারতীয় জওয়ানরা চীনের আরও বড় ক্ষতি করেছে।

উল্লেখ্য, গালওয়ান উপত্যকায় চীনের সাথে হওয়া সংঘর্ষে ভারতের ২০ জন জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন। চীনের এরথেকেও বেশি ক্ষতি হয়েছিল। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, এই সংঘর্ষে চীনের ৪৩ জন জওয়ান প্রাণ হারিয়েছিল। তবে, কিছুদিন আগে আমেরিকার একটি ম্যাগাজিন জানিয়েছিল যে, চীনের ৬০ জন জওয়ান প্রাণ হারিয়েছিল। যদিও চীন মৃত জওয়ানদের সংখ্যা এখনো পর্যন্ত বলতে নারাজ।

Back to top button