টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

দেশের চার প্রান্তে চারটে রাজধানী করার দাবিতে সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আজ নেতাজির জন্মদিবস উপলক্ষ্যে শ্যামবাজার থেকে ধর্মতলায় নেতাজির মূর্তির পাদদেশ পর্যন্ত একটি র‍্যালি করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওনার এই র‍্যালিতে রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলা চলচিত্র জগতের বিশিষ্ট অভিনেতা, অভিনেত্রীরা।

এছাড়াও এই পদযাত্রায় অংশ নিয়েছিলেন প্রশাসনিক কর্তারা। নেতাজির ১২৫ তম জন্মদিবসে আজ কলকাতায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে ২ টি গ্যালারির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। সুত্রের খবর অনুযায়ী সেখানে উপস্থিত থাকতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পদযাত্রা শেষ করে রেডরোডে নেতাজি সুভাষের জন্মদিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত একটি সভাতে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নেতাজির ফৌজে সব ধর্মের মানুষ ছিলেন। দেশের হয়ে লড়াই করাই ছিল ওনার মূল উদ্দেশ্য। ব্রিটিশদের ধর্মের নামে ভাগাভাগি করার বিরুদ্ধে ছিলেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দেশ নায়ক নেতাজির জন্মদিনে কেন্দ্রকে জাতীয় ছুটি ঘোষণা করতেই হবে। নেতাজির প্ল্যানিং কমিশন তুলে কেন দেওয়া হল সেটা নিয়েও প্রশ্ন করেন তিনি।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, কলকাতা একদিন ভারতবর্ষের রাজধানী ছিল। ইংরেজরা কলকাতা থেকে ভারতবর্ষকে চালাত। কলকাতার গুরুত্ব অনেক। এরজন্য কলকাতাকে ভারতের আরেকটি রাজধানী কলকাতা হতে হবে। তিনি এমনও বলেন যে, দেশের চার প্রান্তে চারটি রাজধানী করা উচিৎ।

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘কয়েক হাজার কোটি টাকা দিয়ে নতুন সংসদ ভবন করা হচ্ছে। এত টাকা খরচ করার দরকার ছিল না। ভারতের চারটে প্রান্তে চারটে রাজধানী করা হোক। একটা উত্তর, একটা দক্ষিণ, একটা পূর্ব আর একটা নর্থ ইস্টে। শুধু দিল্লীতে কেন রাজধানী সীমাবদ্ধ থাকবে? ভারতের চারটে জায়গায় ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে সংসদের অধিবেশন করা উচিৎ।

Back to top button