টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

এবার কলেজ নিয়োগেও উঠলো দুর্নীতির অভিযোগ! বিতর্ক মাঝে সাফাই দিলো কমিশন

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ সাম্প্রতিক সময়ে স্কুল সার্ভিস কমিশন থেকে শুরু করে প্রাইমারি টেট দুর্নীতি মামলায় সরগরম হল রয়েছে বাংলার রাজনীতি। শিক্ষা সংক্রান্ত দুর্নীতিতে বর্তমানে নাম জড়িয়েছে শাসক দলের বহু নেতাকর্মীর। পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীকেও সিবিআইয়ের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হয় আর এই সকল মামলা মাঝেই এবার কলেজ সার্ভিস কমিশনে উঠে এলো দুর্নীতির অভিযোগ।

এমনকি গতকাল একটি সাংবাদিক বৈঠক করে কলেজ সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানের পদত্যাগের পাশাপাশি গোটা ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি পর্যন্ত করে বিক্ষোভকারীরা। 2018 সালে কলেজ সার্ভিস কমিশনে পরীক্ষা দেওয়া একাধিক চাকরিপ্রার্থীরা গতকাল একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন। সেখান থেকে তাদের দাবি, “বর্তমানে শিক্ষা সংক্রান্ত দুর্নীতি নিয়ে গোটা বাংলায় আন্দোলন করা সত্বেও রাজ্য সরকারের কোনওরকম চিন্তা নেই। আমাদের ভবিষ্যৎ বর্তমানে অন্ধকারে চলে গিয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও সবকিছু ধামাচাপা দেওয়া হচ্ছে।”

শুধু তাই নয়, এরপর আন্দোলনকারীরা বলেন, “অতীতে উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমস্যার কথা জানানো হলেও কোনরকম সুরাহা মেলেনি। এমনকি আমরা কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চে মামলা করি। তাদের রায় পর্যন্ত শোনেনি কমিশন।” এই বক্তব্য রেখে বর্তমানে সকল চাকরিপ্রার্থীদের মেধাতালিকা প্রকাশ করার দাবি জানায় আন্দোলনকারীরা।

গতকালের এই সাংবাদিক বৈঠকে বেশ কয়েকজন প্রার্থীদের বেআইনিভাবে চাকরিতে নিয়োগ করা হয় বলেও অভিযোগ করেন তারা। এক্ষেত্রে নিজামউদ্দিন নামে এক যুবকের পাশাপাশি আরও কয়েকটি নাম উঠে আসে তাদের তালিকায়। এমনকি আদালতে যাওয়ারও কথা জানায় তারা।

তবে এই প্রসঙ্গে বর্তমানে কমিশন জানিয়েছে, “কলেজ সার্ভিস কমিশনে কোনরকম দুর্নীতি হয়নি। গতকাল নিজামউদ্দিন সম্পর্কে যে অভিযোগ আমাদের সামনে এসেছে, তা আমরা যাচাই করে দেখেছি। এই দাবি একদম মিথ্যে। সঠিক পদ্ধতি মেনেই তাকে চাকরি দেওয়া হয়েছিল। আদালতে এই মামলাটি খারিজ হয়ে গিয়েছে।” তবে বর্তমানে এসএসসি এবং প্রাইমারি টেট মামলার পাশাপাশি কলেজ সার্ভিস কমিশন সংক্রান্ত মামলাটি কলকাতা হাইকোর্টে ওঠে কিনা, সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button