টাইমলাইনভারতরাজনীতি

নির্বাচনের আগে তৃণমূলকে বড় ঝটকা দিল কংগ্রেস, গোয়ায় লাভের মুখ দেখছে বিজেপি

বাংলাহান্ট ডেস্ক: আর মাত্র মাসখানেক। তারপরেই বিধানসভা নির্বাচন গোয়ায়। বিজেপিকে হারিয়ে গোয়ায় নিজেদের ক্ষমতা দৃঢ় করতে বদ্ধপরিকর তৃণমূল। তবে এবার নির্বাচনের দোড় গোড়ায় এসেই ধাক্কা খেল মমতার গোয়া জয়ের স্বপ্ন। গেরুয়া শিবিরকে হারানোর জন্য কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করতে চেয়েছিল তৃণমূল। কিন্তু সেই জোট প্রস্তাবই এবার প্রত্যাখ্যান করল কংগ্রেস।

কেন এমন সিদ্ধান্ত কংগ্রেসের?
উপকূলীয় এই রাজ্যে নিজেদের ক্ষমতা প্রতিষ্ঠা করতে মরিয়া তৃণমূল। সেই কারণেই বিজেপি বিরোধী দলগুলির সঙ্গে একটি ‘মহাগাঁটবন্ধন’ করতে চেয়েছিল তারা। কিন্তু তাঁদের নেতাদের ভাঙিয়ে তাঁদেরই অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তৃণমূলের উপর ক্ষুব্ধ কংগ্রেস। এদিকে আম আদমি পার্টিও আস্থা রাখছে নিজেদের উপরেই। ফলে গোয়ায় একটি জোটের পরামর্শ দেওয়া হলেও দলীয় দ্বন্দ্ব, আস্থাহীনতা ইত্যাদির ফলে এখনও বিশ বাঁও জলে বিজেপি বিরোধী জোট।

কী বলছেন মহুয়া মৈত্র?
নির্বাচনের দোড়গোড়ায় দাঁড়িয়ে জোট তো দূর, একে অপরকে আক্রমন করতেই ব্যাস্ত কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা। গোয়া বিধানসভা ভোটে মহুয়া মৈত্রকেই কান্ডারি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের গোয়া ইনচার্জ  মহুয়া মৈত্র এই জোট প্রস্তাব প্রসঙ্গে বলেন, ‘দল এখনও কংগ্রেসের থেকে উত্তরের অপেক্ষায় রয়েছে। কারণ ভিত্তিহীন ভুয়ো এবং যুক্তিবাদী সাহসী চিন্তাভাবনার কোনো বিকল্প হয় না’।

এর প্রেক্ষিতে অবশ্য আক্রমণ শানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা দীনেশ গুড্ডু রাও। তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট ভাগ করার অভিযোগ এনেছেন তিনি। এহেন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে কার্যতই মজা দেখছে গেরুয়া শিবির। গোয়া নির্বাচনের প্রাক্কালে বিরোধী দলগুলির এভাবে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্বে যে সম্পুর্ণরূপে লাভবান হবে বিজেপি, সেকথা বলাই বাহুল্য।

Related Articles

Back to top button