টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

রাজীব গান্ধীর মৃত্যু দিবসে বিতর্কিত টুইট করে ডিলিট! অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছিল বলে দাবি অধীরের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গোটা রাজ্য জুড়ে এসএসসি সংক্রান্ত মামলা নিয়ে সরগরম রয়েছে পরিস্থিতি। তবে এই বিতর্কের মাঝেই এদিন মোড় কিছুটা হলেও নিজের দিকে ঘোরালেন অধীর চৌধুরী। এদিন টুইট করে কংগ্রেস নেতা লেখেন, “একটি বৃক্ষের পতন হলে ভূমি কাঁপে।” প্রসঙ্গত, ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর পর গোটা দেশ যখন শিখ বিরোধী দাঙ্গায় বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিল, সেই সময় এহেন মন্তব্য করে বিতর্ক বাড়িয়েছিলেন রাজীব গান্ধী।

রাজীবের সেই মন্তব্য নিয়ে তৎকালীন সময়ে উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা ভারতবর্ষ। স্বভাবতই এদিন রাজীবের মন্তব্য অধীরের টুইটে ধরা পড়ার পরেই তা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়ে যায়। ফলে বিতর্ক মাঝেই পরবর্তীতে নিজের সেই পোস্ট ডিলিট করতে বাধ্য হন কংগ্রেস নেতা।

উল্লেখ্য, আজ ভারতবর্ষের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর প্রয়াণ দিবস। সেই প্রসঙ্গে সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও তাঁর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা জানান। তবে এর মাঝেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর এই টুইট বিতর্কের সৃষ্টি করে। পাল্টা বিজেপি দলের যুব মোর্চা টুইট করে জানায়, “এমন পোস্ট করা কখনই উচিত হয়নি অধীরের। আমরা জানি, শিখ দাঙ্গায় কিরকম হত্যালীলা চলেছিল সারাদেশ জুড়ে আর সেটাকে সমর্থন করে তিনি এই টুইট করেছেন, এটা খুব লজ্জাজনক ব্যাপার। কংগ্রেস দল এখনও সেই দাঙ্গাকে সমর্থন করে চলেছে, যা কখনই উচিত নয়।”

প্রসঙ্গত, দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী তাঁরই এক শিখ দেহরক্ষীর হাতে মারা যান। এরপর গোটা দেশজুড়ে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষের উপর ভয়ঙ্কর হামলা শুরু হয়, যেখানে প্রায় 3000 শিখ খুন হন বলে কথিত রয়েছে। আর সেই পরিস্থিতির মধ্যে রাজীব গান্ধী তৎকালীন সময়ে যে মন্তব্য করতেন, সেটাই এদিন অধীর চৌধুরীর টুইটে উঠে আসায় তৎক্ষণাৎ সমালোচনা শুরু হয়ে যায় দেশের সর্বত্র। পরবর্তীতে সেই পোস্টটি ডিলিট করলেও বিতর্ক থামানো যায়নি। এরপর আবার অধীরবাবু দাবি করেছেন যে, তাঁর অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছিল।

Related Articles

Back to top button