টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

বেআইনিভাবে ১৫০০ কেজি রেশন মজুত শিলিগুড়িতে, নেপালে পাচারের ছক বানচাল করে দিল পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বর্তমানে রেশনের (ration) ওপরই জীবনধারণ করছেন বহু মানুষ, করোনা পরিস্থিতিতে জীবিকা চলে যাওয়ায় বাংলা সহ দেশের কোটি কোটি মানুষের এক মাত্র ভরসা রেশন৷ যদিও করোনা পরিস্থিতিতে রেশন চুরি নিয়ে অভিযোগও উঠছে ভুড়ি ভুড়ি। এবার হাতেনাতে ধরা পড়ল বেআইনিভাবে মজুত করা রেশন। ভারত-নেপাল সীমান্তের পানিট্যাঙ্কি দিয়ে নেপালে পাচার করার উদ্দেশ্য ছিল অভিযুক্তের।

জানা যাচ্ছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের ঘোষপুকুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গর ধামভিটা এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। সেখানে এক বাড়িতে বেআইনিভাবে প্রচুর রেশন জমা করার খবর ছিল পুলিশের কাছে৷ পুলিশি হানায়  ৬০০ কিলো চাল, ৬৮০ কিলো গম ৯৪ প্যাকেট আটা ও ১৯০ কিলো মুগডাল সহ মোট ১৫০০ কেজির বেশী রেশন সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে।

এই বেআইনিভাবে মজুত করার জন্য সেখান থেকে একজনে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃত হরদেব রায় (বয়স ২৬ বছর) ধামাভিটা এলাকারই বাসিন্দা। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রেশন সামগ্রী চড়া দামে নেপালে পাচারের উদ্দেশ্যেই বাড়িতে মজুত করেছিল ধৃত। সে বেশ কয়েক বছর ধরেই এই ব্যাবসায় জড়িত।

রেশন সামগ্রী ছাড়াও অভিযুক্তের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ৬০০ লিটার নকল পেট্রল। জানা যাচ্ছে কয়েক বছর ধরেই নেপালে রেশন পাচারের সাথে যুক্ত ছিল এই অভিযুক্৷  এই কালোবাজারির সাথে আর কারা কারা জড়িত খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। তবে সন্দেহ নেই, এই রেশন পাচার রাজ্যের রেশন ব্যাবস্থার ওপর বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন তুলেদিল।

Back to top button
Close