টাইমলাইনভারত

মৃতদেহে পচন ধরায় পরিবারের সম্মতিতেই শেষকৃত্য করা হয়েছেঃ হাথরস কাণ্ডে ADG-র বয়ান

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ উত্তরপ্রদেশের হাথরস (Hathras) কাণ্ড নিয়ে তোলপাড় গোটা বিশ্ব। তরুণীর গণধর্ষণের হত্যার নৃশংস্য ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে উঠেছে নানান প্রশ্ন। পুলিশের বিরুদ্ধে উঠতে থাকা নানান প্রশ্নের বিষয়ে এডিজি প্রশান্ত কুমারের বয়ান প্রকাশ্যে এসেছে।

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ
মঙ্গলবার রাতে ওই তরুণীর মৃত্যুর পর তার পরিবারকে কিছু না জানিয়েই মৃত দেহ নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে পুলিশের নামে। মৃতার পরিবার অভিযোগ করে, রাত ১০টা বেজে ১০ মিনিটে হাসপাতাল থেকে সমস্ত নিয়মকানুন সম্পন্ন করে তরুণীর মরদেহ ছেড়ে দিলে, পুলিশ বিন্দুমাত্র দেরি না করে তা দাহ করতে নিয়ে যায়।

পরিবারের অসম্মতিতে জোর করে পরিবারের লোকজন, আত্মীয়-স্বজন এবং গ্রামবাসীদের তালাবন্ধ করে মৃতার বাবাকে নিয়ে শ্মশানে যায় পুলিশ। রাত পৌনে তিনটে নাগাদ শ্মশানের আলো নিভিয়ে জোর করে শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এডিজি প্রশান্ত কুমারের বয়ান অনুযায়ী
এই ঘটনার বিষয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে এডিজি প্রশান্ত কুমার জানিয়েছেন, ‘নির্যাতিতা মেয়েটির মৃতদেহে পচন ধরে গিয়েছিল। তাই রাতেই বাড়ির লোকজনকে বুঝিয়ে মৃতদেহ দাহ করা হয়। এখনও পোস্টমর্টেম রিপোর্ট আসেনি। তা এলেই পদক্ষেপ নেওয়া হবে। পাশাপাশি সমস্ত ঘটনাটি তদন্তের জন্য সরকার একটি উচ্চ-স্তরের কমিটি গঠন করেছে, যার নেতৃত্বে রয়েছেন স্বরাষ্ট্রসচিব। সেইসঙ্গে রয়েছেন একজন এসপি স্তরের মহিলা অফিসারও। আমরা তদন্ত করছি’।

মোদীজির ফোন যোগীকে
হাথরস কাণ্ডের দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) ফোন করেলন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে (Yogi Adityanath)। বুধবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগীকে ফোন করে ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিতভাবে জানতে চান প্রধানমন্ত্রী মোদী। এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী দোষীদের এমন নজির সৃষ্টিকারী কঠিন শাস্তি দিতে বলেন, যা দেখে অন্যরা ভয়ে শিউরে উঠবে।

Back to top button