টাইমলাইনভারত

ড্রাগ কন্ট্রোলারের সাথে যুক্ত বাম নেতার ছেলে! মাস্টারমাইন্ডকে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ দিল্লী, মুম্বাই আর ব্যাঙ্গালুরুতে ড্রাগ মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কোমর বেঁধে নেমেছে নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB)। শোনা যাচ্ছে যে, ড্রাগ মাফিয়াদের এই নেটওয়ার্ক অনেক বড়। মিডিয়া রিপোর্টে ব্যাঙ্গালুরুর একটি ড্রাগ র‍্যাকেটের মাস্টারমাইন্ড মোহম্মদ অনুপের নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর তদন্তের রিপোর্ট প্রকাশ্যে এসেছে। জানিয়ে দিই, মোহম্মদ অনুপকে গত সপ্তাহে গ্রেফতার করেছিল NCB।

নিজের বয়ানে মোহম্মদ অনুপ জানায় সে ২০১৩ থেকে ব্যাঙ্গালুরুতে ড্রাগের অবৈধ ব্যবসা করে চলেছে। সে বিদেশী নাগরিকদের থেকে MDMA এর ট্যাবলেট নিয়ে শহরের রেব পার্টি আর কলেজ ছাত্রদের বিক্রি করত। মোহম্মদ অনুপ নিজের বয়ানে কেরলের সিপিএম (CPM) নেতা আর অভিনেতা কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণান (Kodiyeri Balakrishnan) এর ছেলে বিনেশ কোডিয়ারির (Binish Kodiyeri) নামও নিয়েছে। মোহম্মদ অনুপ জানায়, বিনেশ তাঁকে ২০১৫ সালে রেস্তোরাঁ শুরু করার জন্য ব্যাঙ্গালুরুর কমনহল্লিতে লিজে প্রোপার্টি দেওয়ার জন্য পয়সা দিয়েছিল। এই বিষয়ে বিনেশ কোডিয়ারিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ করে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

যদিও বিনেশ ২০১২ থেকে মোহম্মদ অনুপকে নিজের ভালো বন্ধু হওয়ার কথা স্বীকার করেছে। তবে তিনি অনুপের সাথে ড্রাগ লিংক থাকার অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। আপনাদের জানিয়ে দিই, এই সিপিএম নেতার আরেক ছেলে বিনয় কোডিয়ারি (Binoy Kodiyeri) ধর্ষণ কাণ্ডেও অভিযুক্ত ছিলেন। এছাড়াও ওনার বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের নানান অভিযোগ আছে। বিনেশ বলেন, ‘২০১৫ এর পর সে একটি রেস্তোরাঁ শুরু করেছিল আর আমার থেকে টাকা ধার নিয়েছিল। সে শুধু আমার থেকেই না, অনেকের থেকেই টাকা ধার নিয়েছিল। আমি অবাক যে, ও এরকম অবৈধ কাজের সাথে যুক্ত। ওঁর পরিবারও এই কথা মেনে নিতে পারছে না।”

https://twitter.com/amritabhinder/status/1141201852345671680

২০২০ এর ফেব্রুয়ারি মাসে অনুপ আর তাঁর দুই সহযোগী ব্যাঙ্গালুরুতে হোটেল আর অ্যাপার্টমেন্টে নতুন ব্যবসা শুরু করে। কিন্তু করোনার কারণে এই ব্যবসা ক্ষতির মুখে পড়েছিল। NCB এর জিজ্ঞাসাবাদে অনুপ স্বীকার করেছিল যে, সে টাকা কামানর জন্য ড্রাগস বিক্রি শুরু করে।

Related Articles

Back to top button