টাইমলাইনভারতরাজনীতি

প্রাক্তন বিজেপি নেতা যশবন্ত সিনহাকে সমর্থন কেন, ব্যখা দিলেন সীতারাম ইয়েচুরি

বাংলাহান্ট ডেস্ক : এগিয়ে আসছে রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচনের দিনক্ষণ। শাসক দল থেকে শুরু করে বিরোধীদল প্রত্যেকে গুটি সাজাচ্ছেন। এদিকে, বিজেপি বিরোধী দলগুলোর মধ্যে একতা আনার ক্ষেত্রে উদ্যোগী বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সিপিআইএমের অবস্থানকে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিচার করতে চাইছেন। আর, বর্তমান রাজনৈতিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতি পদের দাবিদার হিসেবে ‘যশবন্ত সিনহা’র প্রতি লাল পার্টির সমর্থন রাজনৈতিক মহলে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

এবার ঘাসফুল ও গেরুয়া শিবিরের প্রতি তীব্র বিরোধিতা থাকা সত্ত্বেও কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী এবং তৃণমূলের প্রাক্তন সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি যশবন্ত সিনহাকে ঠিক কী কারণে বামেদের তরফে সমর্থন জানানো হল তার ব্যাখা দিলেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

সূত্রের খবর, বাংলায় সিপিআইএমের দলীয় মুখপত্র ‘গণশক্তি’তে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক যশবন্তকে সমর্থনের জন্য বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রসঙ্গই টেনে এনেছেন। তিনি বলেছেন, দুঃখজনক ভাবে এনসিপি নেতা শরদ পওয়ার রাজি হননি। তারপর লড়াইয়ের ময়দানে নামতে চাননি ফারুক আবদুল্লাও। এমনকি একেবারে শেষ মুহূর্তে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীও সম্মতি না দেওয়ায় বিকল্পের ভাবনা চিন্তা শুরু হয়। ইয়েচুরির কথায়, “সেই পরিস্থিতিতে আমরা এমন নামের খোঁজ করছিলাম, যেখানে সর্বোচ্চ মতৈক্য হতে পারে। এই পরিস্থিতিতেই যশবন্ত সিনহার নাম আসে।’’

এর পাশাপাশি, রাজনৈতিক মতপার্থক্য থাকলেও সীতারাম ইয়েচুরি স্পষ্ট জানিয়েছেন, সিপিআইএম বহু ব্যক্তিকে বহু জটিল রাজনৈতিক অবস্থার কথা বিশ্লেষণ করে সমর্থন করেছে। পুরনো নজির তুলে ধরে তিনি বলেন, “অতীতে যখন ইন্দিরা গাঁধী ও জরুরি অবস্থার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সময়ে জগজীবন রাম যখন কংগ্রেস ভেঙে বেরিয়ে এলেন, আমরা তাঁকে সমর্থন করেছি। অন্যথায় সেই সময়ে জনতা পার্টির সরকার তৈরি হত না। তখনকার পরিস্থিতিতে সেটাই প্রয়োজন ছিল।” এমন আরও একটি পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে ইয়েচুরি বলেছেন, ‘‘ভি পি সিংহ রাজীব গাঁধী সরকারের অর্থমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু দুর্নীতির প্রশ্নে তিনি যখন বেরিয়ে এলেন আমরা তাঁকে সমর্থন করেছি।”

সিপিএমের সাধারণ সম্পাদকের কথায়, আসন্ন পরিস্থিতিতে লক্ষ্যপূরণের জন্য সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সিপিআইএম। এর পাশাপাশি, সংবিধান রক্ষা করাই এখন প্রধান লক্ষ্য বলেই উল্লেখ করেন তিনি। তবে, যিনি দেশের জন্য কাজ করবেন তিনি লাল ঝান্ডার সমর্থন পাবেন বলেও মন্তব্য করেন ইয়েচুরি।

Related Articles

Back to top button