টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারতরাজনীতি

করোনা আক্রান্ত আরপিএফ এর ৬, কারা তাদের পাঠিয়েছে? স্ক্রিনিং? কত লোকের সাথে দেখা হয়েছিল? প্রশ্ন তুললেন ডেরেক

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ খড়গপুরে রেল ডিভিশনে রেল সুরক্ষা বাহিনীর (RPF) ৬ জন করোনা আক্রান্তকে নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করলেন তৃণমূলের সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন (derek o’brayen)। পাশাপাশি তিনি প্রশ্ন তুলছেন রেলের জাওয়ানদের দিল্লি ডেকে পাঠানো নিয়েও।

সামাজিক মাধ্যম টুইটারে তৃণমূল কংগ্রেসের এই সাংসদ লিখেছেন, খুব উদ্বগেজনক খবর। বাংলায় ৯জন আরপিএফ কর্মীর করোনা ধরা পড়েছে। খড়গপুরে ৬ জন, মেচেদা/উলুবেড়িয়াতে ১ জন করে। তারা সকলেই ১৪ই এপ্রিল ট্রেনে দিল্লি থেকে কলকাতায় এসেছিলেন। লকডাউন চলাকালীন কি করে তারা ট্রেনে ভ্রমণ করছিলেন? কারা তাদের পাঠিয়েছে? স্ক্রিনিং? কত লোকের সাথে দেখা হয়েছিল?

জানা গিয়েছে, কিছু দিন আগে রেলের অস্ত্র নিতে দিল্লিতে গিয়েছিলেন ২৮ জন জওয়ান। ফিরে আসার পর তাদের মধ্যে ওড়িশায় কর্মরত এক জওয়ানের মধ্যে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে । তারপরই  বাকি জওয়ানদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়

বর্তমানে খড়গপুরে ৮ জন জাওয়ান করোনা আক্রান্ত । এদের মধ্যে একজন উলবেড়িয়া, একজন মেচাদা এবং বাকি ৬ জন খড়গপুর টিভি হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে ভর্তি রয়েছেন।

অন্যদিকে, হু হু করে বাড়তে থাকা করোনা আক্রান্তদের পরীক্ষার জন্য এখন প্রয়োজনীয় টেস্টিং কিট অমিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার ফলে সমস্যায় পড়েছে সাধারণ মানুষ থেকে চিকিৎসক সকলেই। টেস্টিং কিটের অভাবে থমকে যাচ্ছে পরীক্ষা। সেই বিষয়ে বুধবার নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ফের প্রতিবাদের সুর তোলেন। তিনি জানান, কেন্দ্র যা কিট পাঠাচ্ছে, তা পর্যাপ্ত নয় এবং ত্রুটিপূর্ণ। রাজ্যের প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, তিন ধরণের টেস্টিং কিট রয়েছে। যার মধ্যে প্রথমটা হল, আরটি পিসিআর কিট। এই কিটে সমস্যা দেখা দেওয়ায় কেন্দ্র থেকে এই কিটের  ব্যবহার বন্ধ রাখতে বলেছে। তবে এই কিটে পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের ক্ষেত্রে আবার বাহকের প্রয়োজন হয়।

Back to top button