টাইমলাইনরাজনীতি

বিদ্রোহী বিধায়কদের সাথে দেখা করতে গিয়ে পুলিশি হেফাজতে দিগ্বিজয় সিং, চাপে কংগ্রেস পার্টি

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ  ‘বিদ্রোহী’ বিধায়কদের ‘উদ্ধার’ করতে গিয়ে কংগ্রেসের ( Congress) প্রবীণ নেতা দ্বিগ্বিজয় সিং (Digvijay Singh) বেঙ্গালুরুতে (Bengaluru)  গ্রেফতার হলেন। মধ্যপ্রদেশের ২১ জন বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক বেঙ্গালুরুর একটি হোটেলে রয়েছেন। তাঁদের সঙ্গে দেখা করার জন্য বুধবার সকালেই বেঙ্গালুরু পৌঁছে যান দ্বিগ্বিজয় সিং।

বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান কর্নাটক প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি ডিকে শিবকুমার (DK Shivakumar) ৷ এর পর এই দু’জনে বেঙ্গালুরুর সেই হোটেলে যান, যেখানে বিদ্রোহীরা রয়েছেন। কিন্তু বিদ্রোহীদের সঙ্গে দেখা করার আগেই আটকানো হয় দ্বিগ্বিজয়কে। প্রতিবাদে তিনি হোটেলের সামনেই ধরনায় বসেন৷ ঘটনাস্থলেই গ্রেফতার করা হয় প্রবীণ এই কংগ্রেস নেতাকে।

দ্বিগ্বিজয় সিং-এর অভিযোগ, জোর করে আটকে রাখা হয়েছে ওই বিধায়কদের। তিনি বলেন, “আমি ৫ জন বিধায়কের সঙ্গে কথা বলেছি। ওরা বলেছে যে ওদের জোর করে আটকে রাখা হয়েছে।, ফোন ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। ওদের পরিবারের সদস্যরা চিন্তায় রয়েছেন।”

প্রসঙ্গত, এই ২১ জন বিধায়কের হাতের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার ভবিষ্যতের চাবিকাঠি আছে৷ এই বিধায়কদের পদত্যাগপত্র বিধানসভার স্পিকার যদি গ্রহণ করেন, তা হলে সংখ্যালঘু হবে মধ্যপ্রদেশের কমল নাথ সরকার। হেরে যাবে আস্থা ভোটে। কিন্তু স্পিকার নর্মদাপ্রসাদ প্রজাপতি জানিয়ে দিয়েছেন, বিদ্রোহীরা তাঁর সঙ্গে দেখা না করলে তিনি তাঁদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করবেন না।

উল্লেখ্য, এই ২১ জন বিধায়কের হাতের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার  (Madhyapradesh Legislative Council)   ভাগ্যের যাবতীয় চাবিকাঠি রয়েছে। ওই বিধায়কদের পদত্যাগপত্র বিধানসভার স্পিকার যদি গ্রহণ করেন, তা হলে সংখ্যালঘু হয়ে যাবে মধ্যপ্রদেশ সরকার। হেরে যাবে আস্থা ভোটে।

Back to top button