টাইমলাইনবিনোদনরাজনীতি

মুখ‍্যমন্ত্রীকে বড় করতে গিয়ে মহান ব‍্যক্তিত্বদের ছোট করা হচ্ছে, নন্দনে ‘অপরাজিত’ না চলায় সরব দিলীপ

বাংলাহান্ট ডেস্ক: সর্বত্র বাংলা ইন্ডাস্ট্রির পাশে দাঁড়ানোর জন‍্য কাকুতি মিনতি অভিনেতা অভিনেত্রীদের। এদিকে হল পাচ্ছে না অনীক দত্তের ছবি ‘অপরাজিত’ (Aparajito)। যে সত‍্যজিৎ রায় নন্দনের (Nandan) নামকরণ করলেন তাঁর উপরেই বানানো ছবির জায়গা হল না সেখানে! এ নিয়ে গত দুদিন ধরে বিতর্ক চলছে বিভিন্ন মহলে। নিন্দায় সরব হচ্ছেন শুভবুদ্ধিসম্পন্নরা।

এবার মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়কে (Mamata Banerjee) নিশানা করে বিতর্কে অংশগ্রহণ করলেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তাঁর অভিযোগ, মুখ‍্যমন্ত্রীকে বড় করতে গিয়ে পুরনো দিনের মহান ব‍্যক্তিত্বদের ছোট করা হচ্ছে। তৃণমূলের আমলে নন্দনে আলাদাই হিসেব নিকেশ চলছে বলে দাবি করেছেন দিলীপ ঘোষ।


শনিবার সংবাদ মাধ‍্যমকে তিনি বলেন, তৃণমূলের দলের লোকেদেরই ছবি প্রদর্শন করতে দেওয়া হচ্ছে না নন্দনে। দেবের ছবির সঙ্গেও নাকি এমনটা ঘটেছে বলে অভিযোগ দিলীপের। সর্বত্র মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়েরই নামগান চলছে বলে কটাক্ষ তাঁর।

মমতাকে ‘মনীষী’ বলে বিদ্রূপ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর নামকরণ করা মহাজাতি সদনে মুখ‍্যমন্ত্রীর ছবি লাগানো হচ্ছে। বাংলা সাহিত‍্য আকাদেমি পুরস্কার পেয়েছেন। এরপর নোবেলের জন‍্যও মুখ‍্যমন্ত্রীর নাম পাঠানো হবে বলে কটাক্ষ করেছেন দিলীপ। আগের রথী মহারথীদের ছোট করে মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়কে বড় করার চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ তাঁর।

গত ১৩ মে মুক্তি পেয়েছে অনীক দত্তের ছবি ‘অপরাজিত’। সত‍্যজিতের ‘পথের পাঁচালী’ তৈরির নেপথ‍্যের ইতিহাস উঠে এসেছে ছবিতে। অথচ সত‍্যজিতেরই নন্দনে জায়গা হয়নি অপরাজিতর। অন‍্যান‍্য যে হল গুলিতে পেয়েছে বেশিরভাগ জায়গাতেই শোয়ের সময় খুব অদ্ভূত। দুপুরের দিকে শোয়ের সময় কম। জেলার দিকে প্রায় কোনো হলেই চলছে না অপরাজিত।


বিষয়টা নিয়ে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষও। তিনি বলেন, যে পরিচালক অপরাজিতর মতো একটি ছবি বানানোর সাহস বা দুঃসাহস করেন তা কুর্নিশ। সেই সঙ্গে নন্দন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছেন সায়নী।

Related Articles

Back to top button