টাইমলাইনভারত

দীপাবলিতে আলোর মালায় সাজল অযোধ্যা,  ৫ লক্ষ ৮৪ হাজার প্রদীপ জ্বালিয়ে বিশ্বরেকর্ড, দেখুন ছবি

৫ লাখ গোবরের প্রদীপ জ্বালিয়ে দীপাবলি (diwali) উদযাপন করার কথা ছিল অযোধ্যায় (ayodhya)। কিন্তু আদতে তার চেয়ে ৮৪ হাজারেরও বেশি প্রদীপ জ্বালানো হল। সরযূর তীরে ৫ লাখ ৮৪ হাজার প্রদীপ জ্বলে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস এ জায়গা করে নিল রামের নগরী।

৫ শত বছরের বেশি সময় বিতর্ক চলার পর অবশেষে তার অবসান ঘটেছে। রাম জন্মভূমিতে মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন হয়েছে রাম মন্দিরের। তাই এবারের দীপাবলি নিয়ে অযোধ্যা বাসীর জন্য অন্যরকম। লোকশিল্পীদের নৃত্য পরিবেশন, ট্যাবলোয় রামলীলা প্রদর্শন আর সরযূর তীরে লক্ষ লক্ষ প্রদীপের আলোয় জমজমাট হয়ে ওঠে অযোধ্যা নগরী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও রাজ্যপাল আনন্দিবেন প্যাটেল। সমস্ত করোনা বিধি মেনেই এই উৎসব পালিত হয়েছে। কথিত, ১৪ বছরের বনবাস সেরে রামচন্দ্র যেদিন রাজ্যে পা রাখেন সেদিন আলোয় সেজেছিল সরযূর তীরের এই নগরী। ৫০০ বছরের বিতর্ক এর অবসান ঘটিয়ে মন্দির নির্মান যেন রামের আরো এক বার নিজ রাজ্যেই ফেরা। আর তারই উদযাপনে সেজে উঠেছে অযোধ্যা।

প্রসঙ্গত, অযোধ্যার রাম মন্দির ঘিরে বিশাল পর্যটন ক্ষেত্র গড়ে তুলতে চলেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে মাস্টারপ্ল্যান। আন্তর্জাতিক মানের বিমানবন্দরের পাশাপাশি তৈরি হবে ৪ লেনের বাইপাস সহ একাধিক সুবিধা।

নির্বাচনে জিতে উত্তরপ্রদেশের মসনদে বসার পর থেকেই একের পর এক বড়ো অনুষ্ঠান অযোধ্যার মাটিতে করেছেন যোগি আদিত্যনাথ। সেখানেই নির্মাণ হতে চলেছে রাম জন্মভূমি মন্দির৷ সেই মন্দির ঘিরেই শহরকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা করেছেন তিনি। অযোধ্যাকে তিনি গড়ে তুলতে চান আধুনিক বৈদিক শহর হিসেবে।

জানা যাচ্ছে,  অযোধ্যায় বসতে পারে বিশাল রাম মন্দির। যা হয়ে উঠতে পারে বিশ্বের মধ্যে বৃহত্তম। মন্দির থেকে শহর অযোধ্যা ঘুরে পর্যটকরা যাতে অভিভূত হন সেটাই পাখির চোখ করেছে যোগী সরকার। কেন্দ্রের সাথে হাতে হাত মিলিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি প্রকল্প শুরু করে দিয়েছেন। ভবিষ্যতের বাড়তি পর্যটকের কথা মাথায় রেখে অযোধ্যা পর্যন্ত চলছে রেলের ডবল লাইনের কাজও। সৌন্দার্যয়নের কাজ চলছে স্টেশনেও।

এছাড়াও, বেশ কয়েকটি রাস্তাও তৈরি হচ্ছে অযোধ্যাকে ঘিরে। সুলতানপুর পর্যন্ত তৈরি হচ্ছে ৪ লেনের রাস্তা, বিমানবন্দরকে যুক্ত করবে। অযোধ্যা ধামে যাওয়ার জন্য বাইপাস তৈরির প্রস্তাব জমা দেওয়া হয়েছে। ১৫০০ কোটি টাকায় রায় বরেলি থেকে অযোধ্যা পর্যন্ত ৪ লেনের রাস্তাও তৈরি হবে।

পুণ্যতোয়া সরযূ নদীর  কয়েকশো কোটি টাকা খরচ করে আধুনিক সংস্কার করা হবে।পাশাপাশি তৈরি হচ্ছে দশরথ মহল, সৎসঙ্গ ভবন, প্যাসেঞ্জার অ্যাসিস্ট্যান্স সেন্টার ও নাইট শেল্টার।

Back to top button