টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

আহত ১২ সপ্তাহ বয়সি টিয়া পাখিকে বাঁচিয়ে নজির গড়লেন অস্ট্রেলিয়ার পশু চিকিৎসক

১২ সপ্তাহ বয়সি এক অসহায় টিয়া পাখিকে উড়তে শিখিয়ে নজির গড়লেন অস্ট্রেলিয়ার এক পশু চিকিৎসক ক্যাথরিন অপুলি। আমরা অনেক সময় কথায় কথায় বলে থাকি যে মায়ের মতন যত্ন সবাই নিতে পারেনা। একমাত্র মা আমাদের কাছে এমন একজন যিনি কিনা চাইলে সব করতে পারেন। অর্থাৎ তিনি আমাদের সম্ভাব্য যত্ন নয়, নিজের ক্ষতি করে হলেও যত্ন নেয় সেবা করেন।

আর পশু পাখিদের ক্ষেত্রেও তাদের মারা এতোটাই স্নেহময়ী হয়ে থাকেন। কিন্তু মাঝে মাঝে ব্যতিক্রমিও তো ঘটে থাকে , যেমন মানুষ পশুদের যত্ন নেয়। এক্ষেত্রেও ঠিক তেমনটাই ঘটলো। পশু চিকিৎসক ক্যাথরিন অপুলি জানালেন, পাখিটি অচেতন হয়ে পড়েছিল রাস্তায়। তিনি রাস্তায় তা দেখতে পেয়ে তুলে এনে প্রথমেই চিকিৎসা শুরু করে দেন। তিনি এও জানান   কীভাবে পাখিটির ডানা নষ্ট হল তা জানা যায়নি। পাখিকে সেবা করার জন্য এবং তার স্বাভাবিক জীবন দেওয়ার জন্য একটি পশু হাসপাতাল থেকে পাখির ডানা সংগ্রহ করে আনে।তার ডানা লাগানোর জন্য এক  বিশেষ আঠা দিয়ে আহত পাখিটির পিঠে লাগিইয়ে দেওয়া হয় ওই আঠা।  আর এভাবে একটানা চেষ্টায় কাজে লেগে যায় ওই ডানা, কারন পাখিটি আগের থেকে এখন সুস্থ আছে।  নতুন ডানায় উড়তে পেরেছে বলে জানা গিয়েছে। আর এই ছবি নেটে ভাইরাল হয়েছে ইতিমধ্যেই।আর  টিয়ার সেরে ওঠা দেখে আনন্দে উদ্বেল নেট-দুনিয়া।গ্রিক চিক কনিয়ুর প্রজাতির টিয়াপাখিটির ডানা কাটা গিয়েছিল মারাত্মক ভাবে। সম্প্রতি এই ঘটনাটি শেয়ার করেছে একটি ফেসবুক পেজ।

তারাই লিখে জানিয়েছে, আহত টিয়াটির নাম ওয়েই ওয়েই। আঘাত পাওয়ার পর থেকে সে উড়তে পারেনি। আর যতবার চেষ্টা করছিল, আছড়ে পড়ছিল মাটিতে।তাকে এভাবে যত্ন না নেওয়া হলে সে হয়তো মারা যেতো। কিন্তু তা আর হয়নি, সফল ভাবে বাচানো গেছে একটা ছোট্ট প্রানকে।

 

Related Articles