টাইমলাইনভারত

বকরি ঈদের দিন প্রাণী বলি দেবেন না, দিতে হলে সন্তান বলি দিনঃ বিজেপি বিধায়কের বিতর্কিত মন্তব্য

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ গাজিয়াবাদের লোনির বিজেপি (Bharatiya Janata Party) বিধায়ক নন্দকিশোর গুর্জার (Nand Kishor Gurjar) বকরি ঈদের প্রাক্কালে করলেন এক বিস্ফোরক মন্তব্য। যা ঘিরে শোরগোল শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। করোনা কালে সমস্ত অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হছে। তবে এরই মধ্যে ঈদ পরে যাওয়ায়, কিছুটা শংসয়ে রয়েছে সরকার।

নন্দকিশোর গুর্জারের বক্তব্য
বিধায়ক নন্দকিশোর গুর্জার কড়া গলায় এক হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘করোনার সংকটকালে কোনরকম প্রাণী কোরবানি দেবেন না। যদি কোরবানি করতেই হয়, তাহলে নিজের সন্তানকে করুন’।

সেইসঙ্গে তিনি আরও বলেন, হিন্দু ধর্মে কোন শুভ কাজের পূর্বে নারকেল ফাটিয়ে সূচনা করা, ছাগল বলি দেওয়া হয় না। তেমনই মুসলিম ধর্মের মানুষদের কাছে অনুরোধ তারা এই নিরিহ প্রাণীগুলিকে হত্যা করবেন না। এই জন্মে ছাগল মেরে খেলে, পরের জন্মে আপনিও ছাগল হয়ে অন্যের পেটে চলে যাবেন’।

বাড়িতে থেকেই উৎসব পালন করুন
বর্তমান দিনে করোনা সংক্রমণ দ্রুত হারে বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে সরকারী তরফ থেকে প্রকাশ্যে জমায়েত হতে নিষেধ করা আছে। তাই ঈদ উপলক্ষে বাড়িতে বসেই উৎসব পালন এবং নামাজ পড়ার অনুরধ করা হয়েছে।

আদেশ জারী করা একদমই ঠিক কথা নয়
সমাজবাদী পার্টির সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বুর্ক এই ধারণার সম্পূর্ণ বিরোধিতা করে জানিয়েছেন,’ ঈদ মুসলমানদের একটি বড় উৎসব। সেইসময় তারা পশু ক্রয় করে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে তাও করতে পারছে না। তাহলে কিভাবে উৎসব পালন হবে? এইভাবে আদেশ জারী করা একদমই ঠিক কথা নয়’।

জেলে কাটাতে হবে ঈদ, পাল্টা জবাব
বিজেপি বিধায়ক সংগীত সোম, এসপি সাংসদ শফিকুর রহমান বার্কের বক্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়ে বলেন, ‘ঈদে শুধুমাত্র প্রাণী হত্যা করতে হয়, এমনটা কোথাও লেখা নেই। প্রাণী হত্যার বদলে শাকসবজি ও আলু খেয়ে উৎসব পালন করা যায়। তবে সরকারের কথার সাথে যদি তারা একমত না হয়, তাহলে আজম খানের মত, তাঁদেরও বকরি ঈদ জেলের ভেতরেই কাটাতে হবে’।

Back to top button