টাইমলাইনভারত

‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানের জেরে টাকা খরচ নয়, উল্টে কোটি কোটি টাকা কামাচ্ছে মোদী সরকার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ২০১৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra modi) ‘মন কি বাত’ (mann ki baat) নামক একটি অনুষ্ঠান শুরু করেন। মানুষের কাছে পৌঁছাবার জন্য রেডিওকে মাধ্যম হিসাবে বেছে নিয়ে চালু করেন এই অনুষ্ঠান।

প্রধানমন্ত্রীর ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠান
সেই প্রথম থেকে চালু হয়ে মাসে একবার করে আজও সমান ভাবে হয়ে চলেছে প্রধানমন্ত্রীর এই ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠান। এমনকি প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও ভারতে এসে এই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন।

অর্থ অপচয় হচ্ছে ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে, অভিযোগ
সকলেই এই অনুষ্ঠানের বিষয়ে ধন্য ধন্য করলেও, সম্প্রতি বিরোধীরা এই অনুষ্ঠানের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ খাড়া করেছে। বিরোধীদের অভিযোগ এই অনুষ্ঠানের ফলে সরকারী অর্থ অপচয় করা হচ্ছে। কিন্তু বিরোধীদের এই প্রশ্নের জবাব দেওয়ার সময় এখন এসে গেছে। কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে খরচ নয়, উল্টে সরকারের বিরাট পরিমাণ অর্থ আয় হয়েছে।

‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানের আয়ের হিসেব
‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানের খরচের বিষয়ে RTI- এর পেশ করা রিপোর্ট থেকে জানা যায়- ২০১৪ সাল থেকে এই পর্যন্ত সরকারের আয় হয়েছে ৩০ কোটি টাকারও বেশি।
২০১৪-১৫ সালে সরকারের আয় হয়েছে ১.১৬ কোটি টাকা, ২০১৫-১৬ সালে ২.৮১ কোটি টাকা, ২০১৬-১৭ সালে ৫.১২ কোটি টাকা আয় হয়েছে, ২০১৭-১৮ সালে ১০.৫৮ কোটি টাকা, ২০১৮-১৯ সালে ৭.৪৭ কোটি টাকা, ২০১৯-২০ সালে এসেছে ২.৫৬ কোটি টাকা এবং ২০২০ সালে এই পর্যন্ত সরকারের আয় হয়েছে ৫৮ লক্ষ টাকা।

খরচের থেকে আয় হয়েছে ৩ গুণেরও বেশি
অন্যদিকে খরচের হিসাবে দেখা যাচ্ছে ২০১৪ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত মোট খরচ হয়েছে ৭২৯৮৮৭৬৫ টাকা। তবে এটা শুধুমাত্র প্রিন্ট মিডিয়াতেই খরচ হয়েছে। টিভি বা অন্যান্য মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য একটা পয়সাও খরচ হয়নি। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে যে পরিমাণ অর্থ খরচ হয়েছে, তার ৩ গুণেরও বেশি অর্থ আয় হয়েছে। পাশাপাশি এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী মোদী তার কোটি কোটি দেশবাসীর আরও কাছাকাছি পৌঁছাতে পেরেছে।

Back to top button