fbpx
টাইমলাইনলাইফস্টাইল

শীতে শরীরে জলের ঘাটতি হচ্ছে বুঝবেন কী করে?

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গরম কাল মানেই প্রচুর পরিমাণে জল পিপাসা পাওয়া কিন্তু শীতকালে সম্পূর্ণ তার বিপরীত। এ তো ঠান্ডার আবহাওয়া থাকে তাই শীতের জন্য শরীরে জ্বরের প্রয়োজনীয়তা বোঝা যায় না কিন্তু এই সময় বিশেষ করে জল পান করার প্রয়োজন। অথচ জল খাওয়ার তাগিদ না থাকার কারণে জন আমরা খাই না আর তাতেই কিন্তু আমাদের শরীরের সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়। ঠিক সময়ে জল না খাওয়ার জন্য গ্যাস অম্বল এসব চলতেই থাকে।

শীতকালে তাই জলের অভাব বোঝা না যাওয়ার দরুণ অনেক সমস্যার মুখে আমাদের পড়তে হয়। যেহেতু শরীরে জল ধারণ ক্ষমতা খুবই কম শীতকালে কম জল খাওয়ার জন্য শরীরে ফোলা ভাব আসে। চেষ্টা না পাওয়ার কারণে আরও সমস্যা দেখা দেয় তবে শরীরে যে জলের ঘাটতি হচ্ছে তা বোঝা যাবে কী করে? কয়েকটি উপসর্গ রয়েছে, আর সেগুলি হল-

1. অল্পেই অসুস্থ- শীতকালে সাধারণত অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই সময় জল খাওয়া হয় না বলে অসুস্থতার পরিমাণ বাড়ে আর তার জন্য ওষুধের ওপর ভরসা রাখতে হয় কিন্তু এতে শরীরের টক্সিন ও ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বেড়ে যায়।

2. টয়লেট করার সময় জ্বালা জ্বালা ভাব- যেহেতু টয়লেটের মাধ্যমে টক্সিন বেরিয়ে যায় তাই কম জল খাওয়ার ফলে শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে টক্সিন থাকে না আর এটাই টয়লেট করার সময় যাঁরা ভাব দেখা যায়।

3. মাইগ্রেনের যন্ত্রণা- শীতে জলের অভাব দেখা দিলে মাথার যন্ত্রণা এবং যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তাদের মাইগ্রেনের যন্ত্রণা বেড়ে যায়।

4. কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা- শীতকালে অনেকেরই কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা যায়, সেহেতু জল কম খাওয়া হয় তা ই পায়খানার সময় খুবই কষ্ট হয়।

5. বার বার ফিরে পাওয়া- যদি দেখেন বার বার খিদে পাচ্ছে তা হলে বুঝতে হবে শরীরে জলের প্রভাব কিন্তু কমে গিয়েছে, জলের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

Back to top button
Close
Close