টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘ঘন্টার মত শুধু বাজানো হচ্ছে, এসব আর সহ্য করব না’, জোট ভাঙার হুঁশিয়ারি দিল ক্ষিপ্ত ISF

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ মনোমালিন্য শুরু হয়েছে জোট অন্দরে। বামফ্রন্ট শরিক এবং বাম-কংগ্রেস নেতাদের বেশ কিছু মন্তব্যে এবার ক্ষিপ্ত হলেন ভাঙড়ের আইএসএফ (isf) বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকি (naushad siddiqui)। এমনকি জোট ভাঙার হুঁশিয়ারিও দিলেন এই আইএসএফ বিধায়ক। এই বিষয়ে রীতিমত আলোড়ন ফেলেছে সংযুক্ত মোর্চার অন্দরে।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে বাংলায় নিজেদের হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরে পেতে কংগ্রেস এবং আইএসএফ-র সঙ্গে জোট বেঁধে সংযুক্ত মোর্চা তৈরি করেছিল সিপিএম। কিন্তু নির্বাচনের পূর্বেই আইএসএফকে সঙ্গে নেওয়ার কারণে দলের মধ্যেই নানারকম দ্বিমত দেখা গিয়েছিল। এমনকি নির্বাচন শেষে ভরাডুবির জন্যও দায়ী করা হয়েছিল ওই আইএসএফকেই।

তবে সেসব কটূক্তি, মন্তব্যকে উপেক্ষা করে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিল, জোট ভাঙার পক্ষে মত নেই তাঁদের। আইএসএফকে সঙ্গে নিয়েই এগিয়ে যেতে চায় তাঁরা। কিন্তু বর্তমান সময়ে সেই জোট সঙ্গী আইএসএফ-ই দল ছাড়ার হুঁশিয়ারি দিচ্ছে।

আইএসএফ চেয়ারম্যান নওশাদ সিদ্দিকি জানিয়েছেন, ‘সংযুক্ত মোর্চার সঙ্গে আমরা থাকলেও, এই মোর্চার অন্যান্য দল আমাদের নামে নানান মন্তব্য করছে। তবে আমরা কিন্তু এই বিষয়টা আর বেশি দিন মেনে নেব না। দ্রুত এর সমাধান চাইছি আমরা। তবে যদি মনে হয় আমরা সংযুক্ত মোর্চা ছেড়ে দিলে, সব সম্পর্ক আগের মত হয়ে যাবে, তাহলে আমরা তাই করতেও রাজী আছি। কিন্তু এভাবে প্রতিনিয়ত ঘণ্টার মতো বাজিয়ে চলে যাওয়াটা আমরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না, দ্রুতই এর সমাধান চাইছি’।

কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, আইএসএফের পক্ষ থেকে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুর সঙ্গে কথা বলতে চাইলেও, আজ-কাল করে সময় কাটাচ্ছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অন্যদিকে আবার, জোট সঙ্গী কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেছেন, ‘শুধুমাত্র নির্বাচন কেন্দ্রীক ছিল এই জোট’। বর্তমান সময়ে সবকিছু মিলিয়ে জোটের উপর বেশকিছুটা ক্ষিপ্ত হয়েছে আইএসএফ।

Related Articles

Back to top button