টাইমলাইনভারত

কমছে কৃষক আন্দোলনের তীব্রতা! প্রত্যাশিত ১ লক্ষ কৃষকের জায়গায় এল মাত্র ২৫ হাজার জন

কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকমাস ধরে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে, তার তীব্রতা এখন কম হতে দেখা যাচ্ছে। সোমবার দিন কৃষি আইনের বিরোধিতায় রুদ্রপুরে কৃষক মহাপঞ্চায়েতের আয়োজন করা হয়েছিল। রাকেশ টিকাইটও ওই মহাপঞ্চায়েতে পৌঁছে ছিলেন। পাঞ্জাবি গায়িকা রূপীন্দ্র হন্ডা গান শুনিয়ে কৃষকদের সম্বোধন করেন। পাঞ্জাবি গান গেয়ে উনি কৃষক আন্দোলনের উপর সমর্থন জানান। কৃষক মহাপঞ্চায়েতে পাহাড়ি সংস্কৃতির ঝলক ফুটে উঠে।

উত্তরাখন্ডের ঐতিহ্যবাহী ছোলিয়া নৃত্যের সাথে কৃষকরা পৌঁছান। এছাড়াও কৃষকদের সমর্থনে শ্রমিকরাও পৌঁছান। তবে যে সংখ্যায় কৃষক আসার প্রত্যাশা করা হয়েছিল তার দেখা মেলেনি। কৃষক নেতারা দাবি করেছিলেন যে মহাপঞ্চায়েতে ১ লক্ষ কৃষক আসবেন।

তবে মাত্র ২৫ হাজার সংখ্যায় তা থেমে যায়। তবে কৃষকদের মধ্যে আন্দোলোন নিয়ে বেশ উৎসাহ ছিল, বিশেষ করে রাকেশ টিকাইট পৌঁছনোর পর তা স্পষ্ট পরিদর্শিত হয়। প্রসঙ্গত, কৃষি আইনকে কেন্দ্র করে যে আন্দোলনের সূত্রপাত হয়েছে তা থামার নাম নিচ্ছে না। কৃষক নেতারা লাগাতার কৃষি আইন বাতিল করার দাবি তুলেছে। একই সাথে আইন বাতিল না করা হলে বেশকিছু পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। এসবের মধ্যে হরিয়ানার কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইট মোদী সরকারকে নতুন হুমকি দিয়েছেন।

রাকেশ টিকাইট বলেছেন যে যদি সরকার আইন বাতিল না করে তাহলে কৃষকরা ফসলে আগুন লাগিয়ে দেবে। উনি বলেন, কেন্দ্র সরকার এটা যেন না ভাবে যে ফসল কাটার জন্য কৃষকরা বাড়ি চলে যাবে এবং আন্দোলন শেষ হয়ে যাবে। আমরা ফসল জ্বালিয়ে দেব তাও ভালো কিন্তু বাড়ি কোনোভাবেই যাবো না।

 

 

Back to top button