টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

একশো দিনের কাজ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে তোপ মুখ্যমন্ত্রীর

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বার বার বিভিন্ন প্রকল্পের বিধি নিষেধ নিয়ে মুখ খুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এ বার একশো দিনের কাজ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে সরাসরি দোষারোপ করতে শুরু করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ কেন্দ্রের বিভিন্ন বিধি নিষেধের জন্য একশো দিনের প্রকল্পে কাজের সংখ্যা ও পরিধি কমে যাচ্ছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বুধবার বিধানসভায় একশো দিনের প্রকল্পের প্রসঙ্গ উঠতে কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক বিধি নিষেধের কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ একশো দিনের প্রকল্প নিয়েই সাধারণ মানুষদের মধ্যেও অভিযোগের শেষ নেই এরই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে বরাদ্দ আটকে থাকছে বলেও জানিয়েছেন৷ পাশাপাশি পঞ্চায়েত সেচ বন মত্স আর জনস্বাস্থ্যের কাজ একসঙ্গে হওয়ার কথাও জানিয়েছেন৷ আসলে অনেক সময় বিভিন্ন গ্রামে একশো দিনের প্রকল্পের কাজ চলতে চলতে দেখা যাচ্ছে পুরো সম্পূর্ণ হচ্ছে না, যা নিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে                                                                                                                                                                                                                                                                                                                  এ ছাড়াও তৃণমূল কংগ্রেসের এক বিধায়ক একশো দিনের প্রকল্পে পুকুর কাটা নিয়ে প্রসঙ্গ তোলেন বিধানসভায়৷ তিনি জানান পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় নাকি জানিয়েছেন মালিকানাধীন পুকুরে কাজ চলছে না, বরং সরকারি জমিতে পুকুর কাটার কাজ আগের মতোই চলছে৷ অন্য দিকে এত দিন অবধি রাস্তাঘাট নদী নালা পরিষ্কার পুকুর কাটা পুকুরে মাটি ফেলার ইত্যাদি কাজ একশো দিনের প্রকল্পে আওতাভুক্ত করা ছিল কিন্তু এবার থেকে কবরস্থান রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একশো দিনের প্রকল্প যুক্ত করার দাবি উঠেছে বিধানসভায়৷ 

বুধবার বিধানসভার প্রশ্নোত্তর পর্বে সাবিনা ইয়াসমিন , তাঁর দাবি গোর দেওয়ার জন্য খুবই সামান্য পরিমাণ জমি ফেলে রাখা হয় বিভিন্ন জায়গায় সে ক্ষেত্রে মৃতদেহ কবর দিতে গিয়ে সমস্যায় পড়েন মৃতের পরিবারেরা৷ তাই একশো দিন প্রকল্পের কাজের লোক দিয়ে যদি সেই সমস্ত কবরস্থান গুলিকে পরিষ্কার করা যায় সে ক্ষেত্রে দ্রুত সমস্যার সমাধান হতে পারে৷ যদিও বিষয়টি সংখ্যালঘু দফতরের বলে জানিয়ে দেন উপ মুখ্যমন্ত্রী৷

Back to top button